এখন শুধুই শূন্য দেখি
শূন্য দেখি সবখানেতে।
হাতেই ছিল রক্ত গোলাপ
এখন শুধুই কাঁটার দেখা,
গোলাপী সেই এনভেলাপও
শূন্য বুকে উড়ছে একা,
হাতড়ে খুঁজি অন্ধকারে
অমার ছোঁয়া চাঁদনি রাতে,
এখন শুধুই শূন্য দেখি
শূন্য দেখি সবখানেতে।

এখন শুধুই হু হু বাতাস,
নদীর ওপর শীতের আকাশ,
বুক-ভরা সেই লক্ষ তারা
ছায়াপথেই পথ হারিয়ে
খসলো সবই পথের বাঁকে।
জোনাকিরাও ছিল সেদিন
এখন কেবল ঝিঁঝিঁ ডাকে,
শিউলি খসে একলা রাতে,
এখন শুধুই শূন্য দেখি
শূন্য দেখি সবখানেতে।

তখন ভোরে ঝরতো শিশির
ভরতো ঘাসের প্রাণ
এখন শুধুই মেঘলা আকাশ
শিউলি হারায় ঘ্রান,
গাইতো তখন হলুদ পাখি
মুখর হতো গাছগাছালি
এখন সে গাছ পাতা ঝরায়
গ্রীষ্ম বর্ষা শরৎ শীতে,
এখন শুধুই শূন্য দেখি
শূন্য দেখি সবখানেতে।

এখন আমার মরা কটাল
বোদের ভিতর জল লুকিয়ে,
রোদের খেলা দুই পারেতে
চায় কি দিতে সব শুকিয়ে?
শুকনো ফুলেও গন্ধ ছিল,
এখন দেখি সেটাও উধাও
তুই কি এখন নতুন সকাল?
চাঁদ কি দেখিস কৃষ্ণ-রাতে?
এখন আমি শূন্য দেখি
শূন্য দেখি সবখানেতে ...