লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ২৯ এপ্রিল ১৯৮৯
গল্প/কবিতা: ৩টি

প্রাপ্ত পয়েন্ট

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftদিগন্ত (মার্চ ২০১৫)

সতত আড়ালে তুই
দিগন্ত

সংখ্যা

মোট ভোট

মলয় অধিকারী

comment ৮  favorite ০  import_contacts ৭৪৫
সতত ধুলিভরা এই শহর, তার বাতাসে আজ সজীবতা!
বুনো হাওয়াই দুলছে মেহগনি, বিশাল বট সাথে গুল্মলতা।
এই লেক যেখানে নিজের ছায়াটুকুও দেখতে পারেনা কেউ,
সেখানেই আজ প্রানের ধারা, বয়ে চলেছে অগনিত ঢেউ।

পিচঢালা রাস্তা আর অসংখ্য চাকা, ঘর্ষনের পর ঘর্ষন
সভ্যতাকে ব্যঙ্গ করতেই কি আজ, নেমে এলো বর্ষন?
আমিতো এসবে নেই! আমি শুধু দেখি, দেখি আর ভাবি-
বল, আমাকে তুই আর কোথায় কোথায় নিয়ে যাবি?

রিকশা করে যাচ্ছে মেয়েটা, ডাক্তার সে, গায়ে এপ্রোন-
বেলোয়াড়ী বাতাসে উড়ছে চুল, আনমনা তার মন।
তোরও কি এমন হয় মাঝে মাঝে, চুল ওড়ে বাতাসে-
আনমনা হয় মন, হঠাৎ আসা দুঃখ কিংবা হতাশে?

কাচখোলা জানালায় ছোট্ট মেয়েটা, গায়ে লাল ফ্রক
অবাক চোখে দেখে এদিক-ওদিক, হাতে সাপলুডুর ছক।
তুই কি ফিরিস শৈশবে, নাঙ্গা পায়ে দিস জলামাঠে দৌড়,
শাপলা বিলে যেতে দিলনা বলে কেঁদে রাত করিস ভোর?

বন্ধুটির সাথে সাবলীল মেয়েটা, হাতে গাড়ো নীল চুড়ি
মিষ্টি করে বলল ছেলেটাকে ‘তুমি নাটাই আমি ঘুড়ি’।
তুইও কি এভাবে স্বপ্ন দেখিস, প্রজাপতি হয়ে উড়বার
অথবা গভীর রাতে কামিনী হয়ে গন্ধ ছড়িয়ে দেবার?

ফুলে সাজা গাড়ি বেনারসী শাড়ি গলায় মল্লিকা হার
মেয়েটা কাঁদছে সুখে কিবা দুখে, পাশে প্রিয়তম তার।
তুই কি কখনও নিঝুম দুপুরে একাকি বুনিস স্বপ্নজাল
তোরই সুরে সুরে প্রিয়তমা বলে, কেউ মেলাবে ছন্দ-তাল?

মেঘে মেঘে খেলা কাটে সারা বেলা, ছায়া হয়ে সাথে তুই
কখনোবা দেখি কখনোবা ভুলি, কখনোবা তোরে ছুই।
আসে যে আধার নামে যে বৃষ্টি, ভিজে ভিজে হই সারা
এ পথ আমার থামবে কোথায়? তুই ছাড়া আমি দিশাহারা।

রাজপথ একা দিনের যবনিকা, আমি তবু ঘুরে মরি-
আমার এ চলাচল তোকে ছাড়া বল, কেমনে সাঙ্গ করি?
যদি তার কাটে আমি ঘুমে গেলে, কি করে যে চোখ বুজি
তুই ভালোবাসা, শুধু মিছে আশা? না জেনে তোরেই খুঁজি।

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement