নাগরিক নিয়ন আলোয় ভাস্বর কৃষ্ণপক্ষের আলোকিত বিনিদ্র
মাঝরাতের ঘড়িতে হিমবাহের বরফ শীতল আধুনিকতার
অনুভূতিশুন্য অগ্রপথিক হয়ে এক পৃথিবী হৃদয়হীনতার সুতীব্র
শক ওয়েভে সখেদে ভেঙে যাওয়া একটুকরো আনবিক আমি
বিবেকহীনতার সশ্রম দায় কাঁধে নিয়ে আক্ষেপহীন অবিরত
জেগে রই কয়েক পাতা মেয়াদউত্তীর্ণ পলিমার কালঘুম কোন
এক ক্রেতাহীন অবিজ্ঞাপিত নিলাম মঞ্চে তুলে দিয়ে ।

সভ্য হায়েনার ছদ্মবেশে আস্তিনে লুকানো শ্বাপদ হৃদয় নিয়ে
যান্ত্রিক ইট সুরকির আগুন রঙা লালচে জঙ্গলে ডোরাকাটা
শরীরের আদিম বোতাম খুলে তুফান জাগানিয়া নগ্ন নর্তকী
রাতে নিশিগ্রস্থ আমি ঘুমুতে যাই না ছিনাল রাত ক্রমাগত
কুৎসিত আলোর অসহ্য মানবিক ভোর হয়ে যায় বলে ।
চর্বিত সুখের গোপন উল্লাস জাগানিয়া স্বপ্নভ্রষ্ট মদির
রাতে আমি ঘুমুতে পারি না আলো ঝলমলে বিবেকহীন
অভিশপ্ত কাল রাত্রি নিরন্তর একাকী জেগে থাকে বলে ।

আয়েশকে সুখ ভেবে ক্রমাগত ভুল পথে হেটে চলা মদ্যপ
রাতে আমি ঘুমুতে চাই না আমাকে ফেলে কালকূট রাত্রির
নিশিগ্রস্থ বিবেক নিষিদ্ধ গোপন অভিসারে চলে যায় বলে ।
অস্পৃশ্য আগুনের কুন্ডুলী পাকানো কমলা সূর্যের দহন
দগ্ধ দিনের অবারিত আলোয় আমি সফেদ মারা যাই
আমার দিব্যচক্ষু গতিময় অগ্নি বিক্ষেপ সংবেদনশীল বলে ।