মাঝরাতের তারকারাজি তীক্ষ্ণ দৃষ্টিতে কি যেন খোঁজে
লোভাতুর ঘুমন্ত পৃথিবীর বুকে, ঠিক তখন_
আটলান্টিক বা প্রশান্ত নয় বঙ্গোপসাগরের ঢেউয়ের ভাঁজে;
টুকরো কাগজের মত হাবুডুবু খায় ভূ-স্বামীর সোনালি স্বপন।

পলাশী, বায়ান্ন, অথবা একাত্তরের দমিত শিখর থেকে_
অঙ্কুরিত হয় সোনালি স্বপ্নভঙ্গের আগ্নেয়গিরির দল;
৭৫’ই আগ্নেয়গিরির লাভা বেরিয়ে আসে অশনী সংকেতে
আবার অরাজকতার মিহি চাদরে ঢেকে যায় কাঙ্ক্ষিত ফসল।

তারপর... স্বপ্নদেবতার অশনী দৃষ্টিতে_
সৃষ্টি হয় সুনামির পাষণ্ড কল্লোল;
ঘুমন্ত নদীর পাড়ে আছড়ে পড়ে হিংস্র গতিতে
বিনষ্ট হয় মাটির কবির কাঙ্ক্ষিত ফসল।

৮১’র ভূমিকম্পে বদলে যায় তটিনীর কলকল_
জোয়ার-ভাটার মাঝে চলতে থাকে নদী;
নয় বছরের অবৈধ ইজারায় থমকে যায় নদীর জল
অতঃপর পালা বদলে চলতে থাকে দুই নাবিক-অবধি।

তারপর... পেশী আন্দোলনের রথে পালাতে বসে
পূর্বের সকল কবির স্বপ্নের কবিতার ছন্দ।