আমার তিন অক্ষরের এই ছোট্ট জীবন ,
তারে তো সেই কবেই সঁপে দিয়েছি তোমার প্রতীক্ষার কোলে
তাই তো এই অফুরন্ত অবসরে তন্দ্রালু চোখে স্বপ্নরা বাসা বাঁধে
আবারো হৃদয়ের রক্তে টুপ করে ডুবে যায় নিঃশ্বাস ,
অজানা ভয় বাসা বাঁধে বুকের খুব গভীরে
,''তুমি কি আর আসবে কোন দিনও ফিরে
বিকিরিত জ্যোৎস্নার মত করে মুছে দিতে এই অমাবস্যার দীর্ঘশ্বাস?''

ধরো এক দিন ওই রাস্তার মোড়ে যেখানে প্রতিনিয়ত জীবনের ছন্দপতন ঘটে
আমি দাঁড়িয়ে থাকবো রোজকার মত তোমার প্রতীক্ষাতে
অতপর দ্রুত এক গামী পরিবহণ এসে পিষে দিয়ে যাবে আমার সর্বস্ব,
তুমি কি আমাকে চিনে নিবে মর্গের আঁধারে?
নাকি আঁধারের কাছে আঁধার হবে পরাজিত
বিভীষিত চক্ষু বিহীন কোটর আমার চেয়ে থাকবে গভীর বিস্ময়ে
তুমি বরাবরের মত ছেড়ে যাবে,প্রতিশ্রুতি ভুলে যাবে
আর আমি হবো বেওয়ারিশ ঠিক আমাদের ভালোবাসার মত করে।

খন্ড খন্ড হৃদয়ের টুকরো পড়েছিল যেখানে তুমি ছেড়ে গিয়েছিলে
রক্তের দাগ লেগেছিল স্মৃতির পুরো আবাসন জুড়ে,
ঠিক যেই ভয়ে আমি বার বার ঢেকে দিয়েছি এই রক্তের লাল
সেই ভয়ই ফিরে এসেছে কালকেউটের মত করে
তুমি প্রতারক ছিলে,অতপর প্রতারক ছিলে আমি বুঝেছি বহু রক্তের বিনিময়ে।