সে আজ নেই, কোথাও নেই

এই পার্থিব বিশালতার মধ্যে কোথাও তার অস্তিত্ত নেই এতটুকু

তবু সে আছে, পুরোটাই আছে,

সে আছে কারো বেঁচে থাকার প্রতিটা মুহুর্তে

কারো সমস্ত সত্তার মধ্যে, কারো অস্তিত্তের মধ্যে, কারো স্মৃতির মধ্যে,

কারো একাকী নিঃসঙ্গতার বেদনার মধ্যেও তো সে বেঁচে আছে।

ঘুমভাঙ্গা ভোরের হঠাৎ মনখারাপ টা তো তাকে ঘিরেই

দৈনন্দিন প্রচন্ড কর্মব্যস্ততার মধ্যে যে শূণ্যতা, সে তো তারই জন্য

গভীর রাতে চেনা বিছানায় অচেনা মানুষটার পাশে শুয়ে নিভৃতে চোখের জল ফেলা

এও তো তারই থেকে যাওয়া।



সে যে কথা দিয়েছিল থাকবে

তাই সে আছে প্রচন্ডভাবে, সার্বিকভাবে।

নিছক পার্থিব শারীরিক অস্তিত্ত হয়ত আজ আর নেই

কিন্তু শরীরের মৃত্যু হলেও আত্মা তো অমর

ন' হন্যতে হন্যমানে শরীরে

তাই সে আছে, পুরোটাই আছে, আত্মিকভাবে।