দক্ষিণা হাওয়ায় আর ওড়ে না আঁচল,
জানালাতে দাঁড়িয়ে বলিনা মা চল।।
জানালা দিয়ে রোজ আসত মিষ্টি রোদ্দুর,
ছোট বাড়ি দেখা যায়, যায় চোখ যদ্দুর।।
বস্তির ছেলে মেয়ে বাড়িটার চারপাশ,
অর্থের দৈন্যতায় থাকত বারোমাস।।
আমাদের টেবিলটায় খাবার যে কত্ত!
ওরা তখন ডাস্টবিনে কুঁড়াতে মত্ত।।
তবু ওরা হাসি খুশি নেই বস্ত্র-অন্ন,
বাজেটা বড়লোকের নয় ওদের জন্য।
ছিনতায়ের খপ্পরে একদিন রাত্রে
ভয়ে মরি অবস্থা শক্তি নেই গাত্রে।
বস্তির এক ছেলে জীবনটা বিলিয়ে,
আমাকে বাঁচাল হিসেব না মিলিয়ে!
সেই থেকে জানালাটা আজ তক বন্ধ,
আসে যদি আর্তনাদ
সেই ভয়-দ্বন্দ্ব।।