একটি কবিতা লিখব বলে
কলমটা খুঁজছিলাম।
ঠিক তখনই ব্রেকিং নিউজে জানতে পেলাম
কলমটা চাপা পড়ে আছে
বদ্দারহাটে ফ্লাইওভারের
ধসে পড়া গার্ডারের নিচে,
আরো শত মানুষের মতো।

মন খারাপ করে কেএফসিতে ঢুকে
যেই না চিকেন ফ্রাই এ কামড় দিয়েছি,
দেখি, চিকেন কোথায়?
এতো নিশ্চিন্তপুরের পুড়ে কাবাব হয়ে যাওয়া
গার্মেন্ট কর্মী।
থুথুথু।
আমার দুই ঠোঁটের ভিতর ওগুলো কার দাঁত?
আমার তো নয়! তবে কি হায়েনার? না না, লাখটাকায় লাশকেনা মালিকপক্ষের শ্বদন্ত।

নিজের চারিদিকে থুথুর বন্যা ছিটিয়ে দৌড়ে বেরুই, ছুড়ে ফেলি গায়ের পোষাক।
ওকি, ওরা কারা! আমার সীমান্তে ঢুকে আমার বুকেই গুলি চালিয়ে টেনে হিঁচড়ে আমার লাশ নিয়ে যাচ্ছে এ কোন দস্যু বাহিনী?
আমি কি তবে বুড়িমারী সীমান্তের সেই অভাগা চাষা?
তোমরা কেউ কিছু বলছ না কেন?
তোমরাও কি সব ধসে পড়া ফ্লাইওভারে চাপা পড়া মৃত মানুষ ?