এতো সুখ কিভাবে নিংড়ে দিতে পারেন,
আস্ত একটা তলোয়ার ঢুকিয়ে দিতে পারেন জ্যান্ত মানুষের গ্রীবায়।
রমনীয় সুখ ভীষণ মোহনীয় করে!

আপনি মানুষ না দেবতা,
দেবতারা কবিতার উপাদেয় তুলে দেয় সুখি মানুষের করালে,
একেকজন রমনী একহাজার কবিতা।
রমনীরা আপনাকে পূজনীয় করে রাখে,
সুখী আপনিইতো হবেন।

আপনি ধ্যানে বসেও তলোয়ার চালনায় সমান পারদর্শী,
লাখো শান্তির সংসার গড়ুক-ভাঙ্গুক,
বিস্ফোরিত হোক অগ্নিগিরির লাভা মুখ।
তাতে কিঞ্চিৎই বিমর্ষের ভান করেন।
কার্যত-
আপনি আবডালে ভাবেন ধ্বংসমুখর জীবনের গোপন উৎসব কতটা সঞ্জীবনী শক্তির যোগানদাতা।

এই পথে এই যুগে আপনি রাজাধিরাজ,
আপনার শিরে কামনার তাজ।