বিমল বাবু ফিজিক্স পড়ান শিমুলতলী স্কুলে
নুন আনতে পান্তা ফুরায়, কস্টে জীবন চলে ।।

মহাকাশ তার প্রিয় বিষয়, ‘বিজ্ঞান’ ভালবাসেন
এলিয়ান দের কীর্তি পড়ে আপন মনে হাসেন ।।

সেদিন ছিল অমাবস্যা, ফিরছিলেন বাবু বাড়ি
গভীর রাতে “ভন ভন” শুনে অবাক হলেন ভারি ।।

মুখুজ্জে দের বাঁশ বাগানে কিসের এত আলো
ব্যাঙের মত কিই বা ওটা হাত পা গুলো কালো ।।

বিমল বাবু চিমটি কাটেন স্বপ্ন দেখছেন নাতো
বুড়ো মানুষ হলে না হয় , দৌড় দেয়া যেতো ।।

সসার থেকে বেরিয়ে এলো তিনটা বেঁটে প্রাণী
এলিয়ান বলে ডাকে তাদের , যারা বিজ্ঞানী ।।

প্রিথিবীতে মিশন তাদের সৎ মানুষের খোঁজে
কলা কৌশল আছে যত সেসব ব্রেনের ভাঁজে ।।

টিপে টুপে দেখল তারা বিমল বাবুর দেহ
তোমায় পেয়ে সার্থক মিশন , শুধু মনে রেখ... ।।

স্কুলে গিয়ে বললেন যখন গতরাতের ব্যাপার
বাহবা তাকে দিলনা কেউ, করল তিরস্কার ।।

নাইবা স্বীকার করল কেউ তার আবিস্কারের কথা
সেদিন থেকে ভুললেন বাবু অবহেলার ব্যথা ।।

গরীব বলে কস্ট ছিল নিমেষে হল দূর
বিমল বাবুর জীবনে হলো ভীষণ নতুন ভোর ।।
----
(সত্যজিৎ রায়ের একটি গল্পের ছায়া অবলম্বনে)