আরামের রাজপ্রাসাদ ছেড়ে তোমাকে খুঁজতে বেরিয়েছিলাম
ব্রহ্মপুত্রের তীর ঘেঁষে আপনি জন্ম নেওয়া কাশফুল গুলি আর নেই
ওপাড়ের চরে দেখি দু দল গ্রামবাসীর টেঁটা যুদ্ধ
এপাড়ে ইটের পর ইটের গাঁথুনি ; যা বুঝার বুঝে নিই নিমিষেই
এঁটেল, দোআঁশ, বেলে মাটি আছে , এ মাটির মমতা আছে
শুধু তুমি কোথাও নেই !

পিঁপড়ের দল কাড়াকাড়ি করে এক মুঠো খাবারের তরে
নেকড়েরা, দল বেঁধে সারাদিন শিকারের খোঁজে
নেউলেরা উত পেতে থাকে মুরগির বাচ্চার লোভে
বাঘ সিংহ হরিণেরা ধরা দেয় শিকারীর পাতা ফাঁদে
সরল বিশ্বাসে মাছেরা গিলে বড়শির টোপ, দু হাতের রেখায়
রক্তের ছোপ ছোপ লাল দাগ দুর্গন্ধ ছড়ায় !

এক মুঠো ভালবাসার তরে হাতের মুঠোয় ভিজাই হাত, আঙুলে আঙুলে হয় পরিচয়
ঘাসের বিছানায় পাতি শয্যা, বাদামের ছোলায় ভরে উঠে আশ পাশ
পিঠের তলায় পিষ্ট ঘাসেরা অভিশাপ দেয়
মনের বাগান খালি করে বদল হয় একের পর এক অলি !

বন্ধু বলে যাকেই বুকে জড়িয়ে ছিলাম
স্বার্থের টানাটানিতে ছিঁড়ে যায় দড়ি, কখনও কেউ জোড়া লাগাতে আসেনি
নাগরিক মন আরও বেশি পাকা চাষি, গেরামের ছোট ছোট কুটিরেও
ক্রমেই ফিকে হয়ে আসছে এক ফালি বাঁকা চাঁদের হাসি !