কনকনে শীতল হাওয়া
তীব্র থেকে তীব্রতর শীতে
ব্যাঙের দলেরও ডাকতে কষ্ট হয়,

জোনাকিরা পণ করেছে
এমন শীতে জ্বালাবেনা আলো
মন্দও বলুক কবি যতোই
বন্ধ করে দিক লেখা তাদের উপমা দিয়ে,

রাতের আকাশ চাঁদ ঢেকেছে
বুড়িকে তার শীতে পেয়েছে
দেখা দেওয়ার ইচ্ছে নেই তার
ঘুমিয়ে আছে কাঁথা-লেপ মুড়ি দিয়ে,

আঁধার শেষে প্রভাত এলে
সূর্যটা উঁকি দেয় মুছকি হেসে
যেন হয়ে গেছে কাবু সে
রোদের তীব্রতা কম, তাই লজ্জা ঢাকবে কি দিয়ে,

তীব্র থেকে তীব্রতর শীতে
মেঘেরা লুকোয় দুঃখে
অপেক্ষায় থাকা বড়ই যন্ত্রণা
হতে দাওনা পার কয়েকটা মাস আর
ভিজিয়ে দেব সব বর্ষণ দিয়ে,

শুকিয়ে গেছে কাণ্ড পাতা
বৃক্ষের দুঃখ সহ্য হয়না
বেঁচে থাকা বড় কষ্ট
যাকনা কটা দিন আর
নতুন কুঁড়িতে ফুলে ফলে দেব সব সাজিয়ে।