হিজলতলীর মেঠো পথে চলে দুরন্ত সাইকেল
এলোমেলো হাওয়ায় উড়ে কুন্তল, ভাবনারা করে উথাল পাতাল
চিরহরিতের মায়ায় ডুবে যায় এলিসার নগর মন
কলসি কাঁখে নিয়ে যায় জল অবগুণ্ঠিত নববধূ
ছিন্ন ভিন্ন করে দেয় এলিসার এতদিনের অহম ।

হৃদয়ের কোণে ছোট ছোট স্বপ্নেরা জাল বোনে,
ঝেড়ে ফেলে দেয় অনেক সাধের আইফেল টাওয়ার
মনের বাগানে ফোঁটায় ফুল কোন এক বাঙালি তরুণ
যমজ কামনা বাঁধে বাসা, পুচ্ছ মেলে রঙিন আশা
ভালবাসার সুপ্ত বীজ উপ্ত হয় নিমিষের তরে ।

আরশিতে নিজেকে দেখে আর ভাবে মনে মনে
এত রুপ ! পাতাল পুরীর রাজকন্যা নাকি স্বর্গের হুর !
সহসাই মেলে দেয় বিনয়ের বাহু ; বলে, এও কি সম্ভব ?
অজান্তেই চলে যায় হাত লাল পেড়ে হলদেটে শাড়ীর আঁচলে
ঘোমটায় লুকায় বদন , ঢেকে দেয় বুকের বন্ধুর জমিন ।

লজ্জারা উপচে পড়ে বাসর স্মৃতির কল্প শয্যায়
কেউ যেন হাতে রাখে হাত , দেয় সরিয়ে মাথার অঞ্চল
দুরু দুরু কাঁপে বুক , শিরায় শিরায় শিহরিত রাজ্যের সুখ
বাতাসে ভেসে আসে ঝর্ণার গান, হরিণী মনে খুশীর তুফান
জন্মের সার্থকতা লুকিয়ে ছিল বুঝি শাড়ীর ভাঁজে ভাঁজে !!