আমি পাইনি খুঁজে,বসমেত্মর কোন ফুল,
যার সুভাস নিয়েছিলে আপণ মনে তুমি-
পেয়েছি মরিচিকা
চৈত্রের অগ্নিশিখা
তার সুখ বাগিচায় অঙ্গার হয়েছি আমি।

আমি পাইনি খুঁজে,গ্রীষ্মের কাঁঠাল ছায়া,
যেথায় লুকোচুরি করতে মিত্র সনে-
পেয়েছি তপ্ত হাওয়া
ছিলনা আমার পাওয়া
তোমার প্রণয় জল ছাড়া,মরু হয়েছে মনে।

আমি পাইনি খুঁজে,বর্ষার কদম কেয়া,
তোমার স্পর্শ লেগেছিল যার গায়-
আমরই ভাগ্য বলে
ডুবেছি অশ্রুজলে
দুপুরের মেঘ দেয়নি ছায়া মোর গায়।

আমি পাইনি খুঁজে,শরৎ এর কাঁশফুলের ছোঁয়া,
যেথায় তুমি বুলিয়ে ছিলে হাত-
সাদা মেঘের মত
জুটেছে দুঃখ শত
পেয়েছি বেদনা ঘন তুষাগ্নির প্রভাত।

আমি পাইনি খুঁজে,হেমমেত্মর শিশির
যেথায় ছিল তোমার পায়ের ছাপ-
শিশির চোরা রবি
লুণ্ঠন করেছে সবি
পেয়েছি শুধু প্রকৃতির করতাপ।

আমি পাইনি খুঁজে,শীতে খেজুর রসের হাঁড়ি
যা দিয়ে বানাতে তুমি পিঠে-
মম হিয়া হয়েছে রিক্ত
কুয়াশায় আঁখি সিক্ত
পেয়েছি তোমার জমাট বাঁধা মনের ভিটে।