লেখা যখন বিষয়ভিত্তিক আহ্বান করা হয় তখন সে লেখায় সামঞ্জস্যতা খোঁজাটাই স্বাভাবিক। কিন্তু লেখা জমা দেয়ার সময় শেষে এমন কঠোর ভাবে বিষয় সামঞ্জস্যতা বাধ্যতামূলক করাটা খানিকটা হলেও ওসামঞ্জস্য বৈকি? আমার এই কবিতাটি অনেকটা কঠোর সমালোচনামূলক। আর সে কারনেই এই সংখ্যার জন্য লেখাটি সামঞ্জস্যপূর্ন বলে মনে করেছি। ধন্যবাদ কর্তৃপক্ষ।
-লেখার সাথে বিষয়ের সামঞ্জস্যতা ব্যাখ্যায় লেখকের বক্তব্য

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ৫ ডিসেম্বর ১৯৭৪
গল্প/কবিতা: ২৪টি

সমন্বিত স্কোর

৩.৪১

বিচারক স্কোরঃ ১.৯৪ / ৭.০
পাঠক স্কোরঃ ১.৪৭ / ৩.০

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftকবিতা - কঠোরতা (মে ২০১৮)

উত্তরসূরির চিত্রায়ন
কঠোরতা

সংখ্যা

মোট ভোট ২২ প্রাপ্ত পয়েন্ট ৩.৪১

মোঃ গালিব মেহেদী খাঁন

comment ১১  favorite ০  import_contacts ৪৭২
আমার একটা ছেলেবেলা ছিল, প্রচণ্ড চাপে যা বড়বেলা হয়ে গিয়েছিল।
আমার একটা কৈশোর ছিল যা অকালপক্বতায় খুঁজে পাওয়া যায়নি।
আমার একটা তরুণ বেলা ছিল যা হঠাত পাওয়ার স্রোতে ভেসে গিয়েছিল।
আমার একটা যৌবন ছিল যা ভাঁড় বয়ে বয়ে নিঃশেষ!
আর শেষ বেলাটা কেটেছে কেবল নিজেকে খুঁজে খুঁজে।
অতঃপর হলাম ইতিহাস।
সেখানে আমাকে ক্রমাগত কাটাছেরা করেছে উত্তরসূরিরা
নিপুণহাতে ওরা ব্যবচ্ছেদ করেছে,
আমার শৈশব- কৈশোর- তারুণ্য- যৌবন- পুরাতন।
মনের মাধুরী মেশায়ে এঁকেছে নতুন আমায়।
আমি অনেক চেষ্টা করেও তার সাথে নিজেকে মেলাতে পারিনি।
অদৃশ্য সেই আমাতে আমি ছাড়া আর সবটাই ছিল।
অবশেষে প্রতীতি জন্মাল, ওরা আমাকে গড়েনি, গড়েছে পূর্বসূরি।
যাকে এমনই হতে হবে অথবা হওয়া উচিত ছিল।
পূর্বসূরির অপূর্ণতা কাম্য নয় উত্তরসূরির কাছে।
অপূর্ণতা এ জন্মের, ও জন্মে সবটাই পরিপূর্ণ!

advertisement

ট্যাগগুচ্ছ

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement