তুমি ঢাকতে বলে শীতল হতাম আমি
আঁচল ছায়ায় আছড়ে পড়ত সন্ধে
ঈষৎ হলুদ নাজানি কিসব মাখানো
গুড়ো রং তুলি, আবেশ মাখানো গন্ধে।

আঁকিবুঁকি চোখে উথলানো ঢেউ
কাঁধ সরিয়ে লজ্জা তোমায় দিতে
স্রোতস্বিনী, ধরা দিতেনা তুমি
তবু নুর পেয়েছি মধ্যরাতের শীতে।

সাধের গড়া ফুল বাগানের ছাদে
দিচ্ছে দেদোল তোমার আঁচল খানি
আমার রংবেরঙের শাড়ী
সাজবে না ঘর, পড়শি কানাকানি।

ওই দেখো ওই মেয়েটা
শাড়ীর ফাঁসে পথ ভুলে কোনখানে
অনাদৃত চিতার উপর শুয়ে
ফ্যাকাসে আঁচল, দৃষ্টি আকাশ পানে।

ঘাট হয়েছে, আমি তো তোমায় বুঝি
আসছি বলে আর এলেনা, তুমিই বল
এখন আমি কোথায় তোমায় খুঁজি?