ব্লাকহোলের অন্ধ জলে এক বুক সাগর শূন্যতায়
এখনও আমি সেই আগের মত, ডানপিটে কিশোর !
ঝড় নেই, বাদল নেই, আর কোনও দিকে ভ্রূক্ষেপ নেই
হিমগিরির মত অচল দাঁড়িয়ে আছি তোমার আঙিনায় !
এখনও তাকিয়ে আছি তোমার নীল নয়নের তির্যক চাহনির অপেক্ষায় !
কখনও স্মৃতিরা উদ্বেল হয়
কাতর কণ্ঠে কাঁদে আসমানের নীলসিয়া, ডানা হারা পাখির মত
আমিও ভাসি বাতাসে । তুলার পেঁজার মত, মরুভূমির বালুকা রাশির মত,
মহাসাগরের ধূসর ফেনার মত !
আমার অপেক্ষার কাল প্রহর তবু শেষ হয় না !

তবুও আশার বসতি
বুকের খাঁ খাঁ জমিনে এক ফোঁটা বৃষ্টির কোমল ছোঁয়ার মত
তেপান্তরের মাঠের সেই পঙ্খীরাজ ঘোড়ার মত
অমাবশ্যা রাতে হঠাত জ্বলে উঠা ধূমকেতুর মত
অকূল পাথারে ভাসতে ভাসতে কুঁড়িয়ে পাওয়া খড় খুঁটোর মত
আমার সকল শূন্যতা, আমার অপূর্ণতার সকল তিমির
সুবেহ সাদিকের মত
চতুর্দশী চাঁদের মত, গড়ে তোলে স্মৃতির মিনার ! মুহূর্তেই ভুলে যাই
না পাওয়ার যত কষ্ট, শূন্যতা শক্তি যোগায়, সাহস দেয়
অমরত্বের ঠিকানা দেয় !
এক হাঁটু জলে দাঁড়িয়ে কপালে এঁকে দেয় বিজয় তিলক !
আমি হাসব কি কাঁদব; বুঝতে পারছিলাম না,
হঠাত অপার বিস্ময়ে চেয়ে দেখি
এক জোড়া নীলপদ্ম হাতে তুমি সেই আগের মতই আমার দিকে তাকিয়ে !!