ছোট্ট শব্দের অতীব যতনের তুমিই কেবলই "মা"
মোর অত্যাচারে ধর্য্য ধারিত তুমিই আমার "মা"
অশ্রু চক্ষুর বুকে হাসির প্রলেপ তুমিই তো দিয়েছ "মা"
পৃথিবীর এই অপার রূপ তুমিই তো দেখিয়েছ "মা"

তোমার গর্ভে ধারিত হয়ে হয়েছি আমি ধন্য
ঋণের বোঝা যাবেনা কমানো তোমারি কর্মের জন্য
তোমার ছায়ায় লালিত হয়ে স্বপ্ন দেখেছি কত
তোমার ছায়ায় দূরভীত হয় আমার সকর ক্ষত

তোমার গর্ভে খেয়েছি খাবার চুপটি করে বসে
সকল কষ্ট করেছ সহ্য নির্বিচারে হেসে
প্রথমে মুখে দিয়েছ তুলে শ্রেষ্ঠ পানীয় মোরে
শক্তি সঞ্চারিত হতে খাকল একটু একটু করে

আসতে আসতে হামাগড়ি, হাটার প্রাণান্তর চেষ্টা
ছোট্ট বেলার সোনার স্মৃতি, যায়না কেটে রেশটা
মায়ের কোলে শুয়ে কত, শুনেছি গল্প, কবিতা, ছড়া
মায়ের আদরে ভরে থাকা শ্রেষ্ঠ ভালবাসা

মায়ের বকুনি খেয়েছি কত দুষ্টিমির ছলে
শাসনের আগেই ভাসিয়েছি চোখ মহাসাগরের জলে
একটু শাসন, একটু আদর, একটু ভালবাসা
ছেলে একদিন হবে বড় মায়ের একটি আশা

কোথাও খুঁজে পাইনা যখন মনের মাঝে শান্তি
মায়ের কোলে মাথা রেখেই দূর করি ক্লান্তি
মাকে ছাড়া জীবনের, সবি যেন ব্যর্থ
সৃষ্টির সবি সৃষ্টি যেন, কেবলি তারি জন্য

মা, মা, করি কেবলি রাখি তোরে ব্যস্ত
তুই আমার প্রাণ পাখি তুই তো শ্রেষ্ট
তোর তরে জীবন দিতে সর্বদাই রাজি
মাগো তুমি সকলের উর্দ্ধে ঘোষণা দিলাম আজি

মায়ের পায়ে লুকিয়ে আছে আমার বেহেস্তখানা
অনেকে তা মানেনা আজ, যদিও আছে জানা
সন্তান আজ হয়েছে বড় এই মায়ের দরূণ
জীবন দিয়েও তোমার স্বপ্ন করব আমি পূরণ।।