আকাশে সাজানো রঙধনুর
ওই হীরক খণ্ড
ভেসে বেড়ানো মেঘের পালকে আঁকা
সোনালী বৃষ্টির দুর্লভ খনী...
বুকের সিন্দুকে জমিয়ে কি লাভ?
যদি তোমায় না পাই !

সমুদ্রের নীল নয়ন জুড়ে
ঝরে ঝলমলে মুক্তোর শ্রাবণ
সুখের সরোবরে সঁপে দিয়ে
আমার স্ব-হৃৎ স্বনন ...বল কি লাভ?
যদি তোমায় না পাই...যদি পেয়েও হারাই!

পুষ্প-কুঞ্জে সুখের মধু আহরণে
স্বপ্ন বৃক্ষের পাতায় পাতায় -
অপার্থিব আন্দোলিত ঘ্রাণে
সবুজ পান্নার শরীর জুড়ে
অব-ছায়ার স্নিগ্ধ মায়া ছড়িয়ে
কি লাভ বল ?

পৌরাণিক ইতিহাসে
প্রাচীন বিহঙ্গেরা যদি
তোমার নামের গান ... না গায় !

তবে ঘূর্ণি ধূলর সর্পিল পথে
উদ্ভ্রান্ত আমি
যদি হারাই ...
কি আসে যায় !
কি আসে যায় !

বিষণ্ণ মুহূর্তেরা
ডুকরে উঠে ...ছটফট করে
কষ্টের আস্তর জমানো ...নীল বিছানায়
কাঁদে অন্তরীক্ষ অনুক্ষণ -

তোমার অসীম ভালোবাসার
সুখো সুধা হতে যদি বঞ্চিত হই
হৃদয়ের স্বর্গ প্রাসাদের এই
বিলাসী প্রহরের কি দাম !

তাই মেঘ প্রবঞ্চনার কানে কানে
এই সুপ্ত কামনা
মহা আকাশের ওই সপ্তম ফ্লোরে
করেছি কুরিয়ার -


নিদ্রাহীন রজনীর ভাঁজে ভাঁজে
যে বেদনা রেখেছি এঁকে
তুমি দেখে নিও
বুঝে নিও...।
এক সিন্ধু সুখের বিনিময়ে
আমি যে এক বিন্দু ভালোবাসা চাই
তোমার !

চির মহীয়ান প্রভু আমার !
অতৃপ্ত আত্মার এই সুপ্ত বাসনা
তুমি ফিরিয়ে দিওনা !
ফিরিয়ে দিওনা ...।