আকাশে অক্ষত চাঁদ আকীর্ণ হাসি মুখে
যেন ঝুলে আছে তোমার ঝুল বারান্দায়
এক পলক দেখবে বলে চেয়ে আছে
তোমার শোবার ঘরের স্বচ্ছ আয়নায়

যেখানে খানিক আগেই ঘুরে গেছ একবার
টিপ খুলে বুনে দিয়েছ আয়নাতেই
এখন এলে চোখে জল ছিটিয়ে
এবার খুলে নিলে কান আঁকড়ে থাকা
রুপালী একজোড়া দুল
এবার খুললে গলা থেকে ঘামে জড়ানো
জারদোসী হার, নতুন কেনা।

আলগোছে খুলে দিয়ে হাতখোঁপা
ক্লিপগুলো সরালে এবার
চুড়িগুলো বড্ড বিরক্ত করছিলো
খুলে নিলে সেগুলোও

তারপর...
তারপর চাঁদের অপেক্ষার পালা
অপেক্ষা তোমার সুতনু গায়ে একবার
আড়চোখে তাকাবার।

চাঁদের অপেক্ষা আর ফুরায় না
ক্লান্তিতে কমে আসে জোছনার আলো
মেঘ এসে ভিড়ে করে আশেপাশে
দুই একবার ফোড়ন কাটে...
''কই এল?''

অভিমানী চাঁদ কিছুটা পিছিয়ে আসে
তবু চলে যায় না, যেতে পারে না
ঘুমে তোমার চোখ জড়িয়ে আসে
নিপাট বিছানা- নরম কুশনে তোমার মাথা
পাশের ঘুমন্ত নিরেট দেহ টের পায় না
তোমার অস্তিত্ব, ক্লান্তি, কামনা
শুধু রাত জাগা চাঁদ আরও একটু
দূরে সরে গিয়ে চোখ রাখে আয়নায়
যদি আবার আস কোন অজুহাতে
অথবা কোন অজুহাত ছাড়াই।।