আমার ভালবাসা হারিয়ে গেছে অনেক আগে।শুধু ওর মাকে পাঠানো চিঠি টা রয়েগেছে আমার কাছে।

শ্রদ্বেয় ‘আম্মাজান’ তারিখঃ ৩১-০৩-২০১১ইং

প্রথমে আমার সালাম গ্রহন করবেন। আশারাখি আপনারা সবাই ভাল আছেন। আর ভাল থাকারি কথা।

‘আম্মাজান’ গত ০৮-০২-২০১১ইং তারিখে আমি আপনার কাছে ক্ষমা এবং আপনার মেয়ে সালমা কে আপনার কাছ থেকে ভিক্ষা চাওয়ার জন্য আপনাদের বাসায় আসি। কারন আমি আপনার মেয়ে সালমা কে ভালবাসি। যদিও আপনাদের বাসায় এসে দেখি আপনাদের বাসায় তালা লাগানো ছিল। আমি পাসের বাসার এক জনের কাছ থেকে শুনেছি আপনারা নাকি ডাক্তারের কাছে গিয়েছেন। যদিও আপনারা বাসায় ছিলেন। আমি প্রায় দুই ঘণ্টা মতো আপনাদের বাসার রাস্তায় ঘুরা-ফিরা করি এবং ভাবি কখন আপনারা ডাক্তারের কাছ থেকে আসবেন।

এর মধ্যে আপনার ছেলে এবং তার বাড়াটিয়া মাস্তানেরা আমাকে ধরে নিয়ে যায়। তারপর ওরা আমাকে মার-ধোর করে এবং আমার মোবাইল ও টাকা নিয়ে যায়। যদিও এই গুলোর প্রতি আমার কনো লোভ নেই। তাই আমি নিরবে সব কিছু সহ্য করেছি।

‘আম্মাজান’ আমি আপনার মেয়েটিকে অনেক অনেক অনেক বেশি ভালবাসি। সালমা ও আমাকে ভালবাসে। যার প্রমান স্বরূপ আমি একটি DVD তে আমার এবং সালমার প্রেমের কিছু কথা লোড কোরে এই চিঠিতে দিয়েছি। আশা করি নাদিম এর কম্পিউটারে দেখে ও শুনে নিবেন।

‘আম্মাজান’ আপনিতো বলে ছিলেন আপনি নাকি আমাকে কখনো দেখেননি, তবে আপনি ছাড়া আপনাদের ঘরের সবাই আমাকে দেখেছে এবং কথাও হয়েছে। যেমন তাকলিমা, মরশেদ ভাই, মনির, মিলি আপু………

‘আম্মাজান’ যেহেতু আপনি আমাকে দেখেন নাই তাই আমার একটা ছবি দিয়েছি। জানিনা আমাকে দেখার পর আপনার কাছে কেমন লাগবে। তবে একটা কথা, আমিও মানুষ আর আপনিও মানুষ। কাউকে দেখে মুল্যায়ন করা যায় না। আবার ছোট ও মনে করা যায় না।

‘আম্মাজান’ আপনাকে বোধহয় অনেক বিরক্ত করলাম। আমাকে ক্ষমা করে দিবেন। সবাইকে নিয়ে ভাল থাকবেন। আমার জন্য দোয়া করবেন যাতে আপনার মেয়েকে অতি শীঘ্র আমার জীবন সাথী হিসেবে পাই। আল্লাহাফেজ…………………………।

সালমা-মাহমুদ
মোবাইলঃ ০১৮২৭৮৯৫৮৫২