শ্রাবনে ঝর ঝর বর্ষা নামে,
মাঠ ঘাট ভেসে জায় জলে,
ঝিলের শাপলারা সব হেসে ওঠে,
তখন তোমার কথাই যে মনে পড়ে!

গ্রীষ্মের খরাতপ্ত উদাস দুপুরে,
একাকী পান্থ হেঁটে যায় দূরে,
বিস্তীর্ন দিগন্তে পাখিরা যায় উড়ে,
তখন তোমার কথাই যে মনে পড়ে!

একদিন সন ধ্বংস হবে লয়ে,
অশান্ত বিশ্ব আসবে শান্ত হয়ে,
সমূদ্র নাচবে ঢেউ এর প্রলয়ে,
তখন তোমার কথাই যে মনে পড়ে!

ফসলের মাঠে বাতাস বয়ে চলে,
গাছগুলো সব একাধারে হেলে পড়ে,
অবসন্ন কৃষক মাঠে থাকে বসে,
তখন তোমার কথাই যে মনে পড়ে!

শীতের ঢেকে যাওয়া কুয়াশার চাদরে,
ঠান্ডা হিমেল বাতাসের পরশে,
প্রকৃতি মেতে ওঠে উৎসব পার্বণে,
তখন তোমার কথাই যে মনে পড়ে!

প্রকৃতিতে যখন মোহনীয় বসন্ত আসে,
চারিদিক শোভিত হয় ফুলের সৌরভে,
মৌমাছিরা ফুলে মধু খুঁজে ফেরে,
তখন তোমার কথাই যে মনে পড়ে!

পূর্ব দিগন্তে যখন সূর্য্য ওঠে হেসে,
গাছে গাছে পাখিরা মাতে কূজনে,
প্রকৃতি সজ্জিত হয় অপূর্ব সাজে,
তখন তোমার কথাই যে মনে পড়ে!

হৃদয় যখন হয়ে ওঠে অশান্ত,
তোমার স্মৃতি মনকে করে শান্ত,
রাত্রি যখন আসে চুপিসারে,
তখন তোমার কথাই যে মনে পড়ে!

রঙের পসরা নিয়ে রংধনু ওঠে,
হৃদয় মাতে যখন আপন খেয়ালে,
ভরে যায় সব বর্ণিল ছবিতে,
তখন তোমার কথাই যে মনে পড়ে!

মন উদাস হয় বাঁশির করুণ সুরে,
বারবার মনে হয় নও তুমি দূরে,
যখন এলে তুমি এই মনের গভীরে,
তখন তোমার কথাই যে মনে পড়ে!