কেউ বলে ভালোলাগা ক্ষন, শিশির-সিক্ত সুখানন্দ শীতেই বয়ে আসে,

দুখী, আমি বলি শীত আছে আশা-নিরাশার নাঁগপাশে !

কেউ বলে শীত আনন্দ-ভ্রমন বিলাসী বিনোদনের ঋতু,

দুখী, আমি বলি হীমবাহ ও শৈত প্রবাহে শত প্রানের করুণ মৃত্যু !

কেউ বলে শীত পৌষ- পার্বনের পিঠে আর পায়েসের মাস,

দুখী, আমি বলি হত দরিদ্রের শীত নিবারণের নির্বাস সর্বনাশ !

কেউ বলে শীত বিয়ে-সাদীর ধুম-ধামের মোক্ষম মৌসুম,

দুখী, আমি বলি ভুখা-নাঙ্গার কনকনে শীত হার কাঁপানো রাত নির্ঘুম !

কেউ বলে শীত শাক-সবজী আর শস্য-মাছে ভরপুর দিন,

দুখী, আমি বলি দরিদ্রের একমুঠো ভাতের হাহাকার বীণ !

কেউ বলে কুয়াঁশা আর শিশির ভেজা রাত্রি বড়ই রোমাঞ্চকর,

দুখী, আমি বলি সেসব রাত্রি ভগ্ন র্হীদয়ে অধিক কষ্টকর !

কেউ বলে শীত দম্পতির সহোবস্থানের বেহিসাবী উষ্ণতা,

পরিসংখ্যাণে, আমি বলি শীতেই জনসংখা বৃদ্ধি সৃষ্টির অধিক প্রবণতা,

কেউ বলে শীত রাজনৈতিক ফায়দার জালাও-পোড়াও মাস,

আমি বলি, বছর শেষে জনগণ ক্ষমতাসীনদের হঠকারিতা ও জিল্লতীর কৃতদাস !

দুখীদের সাথে আমিও বলি নাহোক, পাওয়া নাপাওয়া বঞ্চনা-প্রবঞ্চনার মাস,

শীতের মাঝে মিশে আছে আমাদের গৌরবের একুশ, স্বাধীণতা আর বিজয়ের উল্লাস !