বসন্ত এখনো সাজঘরে
আমি তাই নক্ষত্রের উত্তাপ নেই শীতার্ত শরীরে।
হেমন্ত বালক,
তুমি নাকি অদ্ভুত বৃষ্টি নামাও..
অসময়ে ভিজিয়ে দাও চন্দ্রমল্লিকার পালক!
তবু তোমার অস্তিত্ব ভূলে যায় ফসলের রাত
খুব ধীরে স্পর্শ করে শীতের নগ্ন হাত..
আমলকির ডাল ঘিরে ভীড় করে কুয়াশার দল;
তৃষ্ণার্ত হৃদয় পান করে মুঠো মুঠো জোছনার জল।
চারপাশে ছায়ারঙা শীত আর রূপালী ঘাস..
তারপর চন্দ্রবিলাস!