দুখী তব কুন্ডরে প্রভু-?
কর হে রহম তারে
রহিমের বাক্যনে ।
সে এমন কেমন দুখী
একবার নহে কাঁদে
বারংবার স্রোতে ভাসে
কে হীন্য ঘিন্য তাসে
এমতী সর্বসাশা উকি।।
তব দুবেলার অন্য অসহায়
আসিল বৈশাখী কালোময়ী ঘূর্নীঝড়
অবধেই আইলার প্রখর-
এ গৃহের নিরাকার বাতি
কোনবা পাপাগারে ভুলে
হাসি নেও মুচি।।
পদ্মার রাশি রাশি
অন্ত গৃহে টেউ খেলে
মেঘনায় ডাকিল তারে
অবিরাম বর্ষনে
আমরন লড় পনে
তোইবা দুখীর ঠাই নাই ঠাই নাই।।
প্রভু -?
তব কিবা ভ্রান্তির অসহায়
ঐ নতজানু আয়েসের বসত কিনারায়
এ কোন বৈর্ষমের হিমালয়
তাহারে করিয়া দোহায়।
প্রভু-?
তবেরে একটুক ছিট্কা সুখ
আনিয়া দেও।
মর্মে লাগেনেকি এ দুখীর দেখীয়া নিরুপায়।
প্রভু-
আমিত দুখী কাঁদি নাই কাঁদি নাই
কাঁদিল বিশ্ব বাসি তাহার কাঁন্নায়
ঘলেম হতভাগ অবকনে এ দুর্যোগের সর্বহারায়
এ আনা কড়ি তারে ধান্য দিতে পারি নাই পারি নাই।
প্রভু-?
ঐতো ক্ষুধার্ত মুমূর্ষ শিশু
শীতালু চাদরে মা জড়াতে পারেনে তারে
আহার নিদ্রাহীনা খোলা পবন তলে
জীবনের স্বপ্ন তার তবুও টেউ খেলে
এইতো ঘুছাবে প্রভাত আলো ।