লেখকের তথ্য

Photo
গল্প/কবিতা: ১১৩টি

সমন্বিত স্কোর

৩.৩৭

বিচারক স্কোরঃ ১.৭ / ৭.০
পাঠক স্কোরঃ ১.৬৭ / ৩.০

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftকবিতা - অপূর্ণতা (ডিসেম্বর ২০১৬)

একজন মুক্তিযোদ্ধার হাহাকার
অপূর্ণতা

সংখ্যা

মোট ভোট ২৫ প্রাপ্ত পয়েন্ট ৩.৩৭

সেলিনা ইসলাম

comment ৮  favorite ০  import_contacts ৬৫৯
হেইদিন যহন অত্যাচার সইতে সইতে
পিঠটা গেছিল দেয়ালে ঠেইকা?
মায়ের বুকে আসন নিছিল হগুণের পাল
মায়ের নিঃশ্বাস নিতে হইছিল কিযে কষ্ট
ফলন জমি ফালাইয়া গর্ভবতী বৌরে রাইখ্যা
মা’রে শ্বাস দিতে হেইদিন আমিও করছিলাম যুদ্ধ।

শীতে কাঁপন ধরছে,জুতা পায়ে নাই দগদ্গা ঘা হইছে
মাইলের পর মাইল চিটা পেট লইয়া এক একটা
পিশাচরে ধইরা ধইরা মাডির পেডে ঢুকাইয়া দিছি।
শিকল দিয়া বাইন্দা আমার মায়ের-
ফলত বাগানে চোখ ফালাইল!
জিব্বা দিয়া লালা ফালাইছে বইলা
আঙ্গুল দিয়া চোখ উপড়াইয়া ফেলছি
জিব্বা টাইনা ছিঁইড়া,মায়ের শিকল খুইলা মুক্তি আইনা দিছি!

কিন্তুক আইজ...
মুক্তিযুদ্ধ তোমাগ কাছে এট্টা ইতিহাস
কিন্তুক এই মোর কাছে,মোর কাছে জ্বলন্ত আগুন !
জ্বলজ্বলা সইলতার নাহান এহনো পুইড়া মারে
দগদগা ঘা মোর বুহের মধ্যিখানে ।
হেইদিন যখন হুয়ারের পাল পিঁপড়ার নাহান,
সারিসারি দল বাইন্দা মোর ঘরে হানছিল-
সামনে তহন পথ দেহাইয়া লইয়া আইল
রহমত আলীর হগুনের চউখ !

আমার দশ বছরের মাইয়াডারে নিয়া
আদিম খেলায় উডছিলো খেকুরের রব
সাদা টুপিহান খুইল্লা পকেটে রাখছিলো
লোভিষ্ট ঐ পিশাইচ্চার প্রাণ ।
দাউদাউ কইরা জইল্লা যায় ঘর
পাঁচ বছরের পোলার হয় জিন্দা কবর
যে মাটিরে আজ দেহো তুমি হবুজ
আমি দেহি মোর জানের রক্ত দখল!

এহনও চিক্কর পারে মাইয়া "বাজান গো...
মোরে মুক্তি আইন্না দাও গো বাজান”!"
আসমানে অহনো হকুনের পাল পাখনা ঝাঁপটায়
মাডিতে দেখি টকটকা রক্তের নিশান... ।
আমার মাইরে নিয়া যে তামসা করে
তারে আমি ধ্বংস করি! কিন্তু তোমরা!?
ক্যামনে বুঝাই,এইডা আমগো জন্মতরী
এইডা কেবলই তোমার আমার
শেষ আশ্রয় বসতজমি।

আমার দুক্কু কেডায় বুঝব? তুমি বুঝবা? এই তুমি...?
নাহ...আইজ গো পাঁচচল্লিশ বছরেও খাঁ খাঁ মন
এট্টু ফোঁটা প্রেম জাগাইতে পারে নায়-
জননীরে অবহেলার এত খামতি ক্যান কইতে পারো?!

তোমরা সবাই ঝিম থাকো তাই জননীর কোলে শত্রু জম্মে।
কিন্তুক তুমি কী জানো?
হেইদিন হাতের মধ্যিখানে ঠান্ডা বোমাডা লইয়া
আগুনের মধ্যে ঝাঁপাইয়া পড়ছিলাম,
দানবের হাসি চিরতরে মিডাইয়া দিছিলাম!
চাইয়া দেহ তোমরা,এই...এ...ই হানে মনে হয়
আইজও হাতের মধ্যি ঠাণ্ডা বোমাডা ধইরা আছি
মোর কানে এহোনো বাজে ঠা ঠা গুলির হব্দ
তোমরা তোমাগো ইতিহাস নিয়া গর্ব হর
চিক্কর থামাও না,গুলির হব্দ থামাও না,হুদাই ফাল পাড়ো।

আমি অশিক্ষিত্ হইয়া,দুইডা পা দিয়া দর্প দিছি
শিক্ষিত্ হইয়া পারো না এগুলান থামাইতে?
কেন্ পারো না! মাথার গামছাডারে বানছি হক্ত হইরা ,
সময় অহন... সময় অহন ঢইলা পড়ে আন্ধারের বুকে!
আহো -কে আইবা আলো জ্বালতে!কে আইবা আও...
শিয়ালের পাল অহনো রক্তের হলী খেলে
ঘুম আহেনা কাডেনা রাইত বিরেত
আও...তোমরা বোমাডারে নিয়া ক্ষ্যান্ত কর
ক্ষ্যান্ত কর মোর অনাকাঙ্ক্ষিত,অপূর্ণ কাজ।







advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন
  • কাজী জাহাঙ্গীর
    কাজী জাহাঙ্গীর এক কথায় তুলনাহীন । পরাণডা জুড়াই দিছেন গো আপা, হেইদিন যেই হুগুন গুলারে খতম কইরা মুক্তি আইনছিলাম, আইজ হেই হুগুন গুলার ‍কিছু নতুন বাচ্চা জন্মাইয়া আবার আমাগো অধিকার কাইড়া লইতাছে, যদি আরেকখান ঠান্ডা বোমা হাতে পাইতাম গো আপা...... একটু আবেগি হয়ে গেলাম। অনেক শুভ...  আরও দেখুন
    প্রত্যুত্তর . thumb_up . ৩০ নভেম্বর, ২০১৬
  • কেতকী মণ্ডল
    কেতকী মণ্ডল আমার গায়ের রোম খাড়া হয়ে গেছে! চোখের কোনে পানিও চলে এসেছে। সশ্রদ্ধ সালাম রইল এমন অসাধারণ কবিতায়।
    আবৃত্তি করার জন্যে দারুণ একটা কবিতার জন্ম হলো।
    কবিতা পড়ার পর ভোটের যেই বাটনটা ঠিক উপযুক্ত মনে হয় তাই চাপি।
    এই কবিতা পড়ার পরও একটা বাটনের দিকেই চোখ পড়লো। আমি ...  আরও দেখুন
    প্রত্যুত্তর . ২ ডিসেম্বর, ২০১৬
  • ফাহমিদা   বারী
    ফাহমিদা বারী Chomotkaar Apa! Kobita Tatei ebar matiye dilen!!
    প্রত্যুত্তর . ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬
  • মহাসিন মহী
    মহাসিন মহী নমস্কার করি প্রথমেই এমন কাব্য প্রতিভার প্রতি কেননা এমন কবিতা কালে ভদ্রে জন্মে। অসাধারণ আঞ্চলিক ভাষার ব্যবহার এর মাধুর্যতাকে আরও দ্বিগুণ বাড়িয়ে দিয়েছে, আর কবিতাটিকে অনন্য অসাধারণ করে তুলেছে এর বাচনভঙ্গি, কী বলব এক কথায় অসাধারণ । আজকের দিনের লেখনীতে সাধারণত...  আরও দেখুন
    প্রত্যুত্তর . ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬
  • জয় শর্মা
    জয় শর্মা এই যে আপনারে কইতাছি আপা- পাঁচচল্লিশ বছর পরেও যেন আবার চোখের সামনে খুইজ্জা পাইছি নিজের মায়েরে! চোখের সামনে যেন হক্কল দৃশ্য ফুটে উঠতাছে। দারুণ কাব্যরূপ! ভোট আর ঢের শুভকামনা।
    প্রত্যুত্তর . thumb_up . ৭ ডিসেম্বর, ২০১৬
  • রাজু
    রাজু এককথায় , দারুণ !
    প্রত্যুত্তর . ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬
  • গোবিন্দ বীন
    গোবিন্দ বীন শিয়ালের পাল অহনো রক্তের হলী খেলে
    ঘুম আহেনা কাডেনা রাইত বিরেত
    আও...তোমরা বোমাডারে নিয়া ক্ষ্যান্ত কর
    ক্ষ্যান্ত কর মোর অনাকাঙ্ক্ষিত,অপূর্ণ কাজ।ভাল লাগল।আমার কবিতা পড়ার আমন্ত্রন রইল।
    প্রত্যুত্তর . ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৬
  • আহমাদ সা-জিদ (উদাসকবি)
    আহমাদ সা-জিদ (উদাসকবি) bhalo laga roilo kabbo..
    প্রত্যুত্তর . ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৬

advertisement