তোমার যদি সৃষ্টি না হতো
সুন্দর পৃথিবীটা দেখা হতো না আমার।
অন্ধকার জঠরের বিন্দুবৎ আবির্ভাব থেকে
তুমিই দিয়েছিলে আমায় মানব সন্তানের পূর্ণতা।
তোমার স্নেহময় উষ্ণতার মাঝেই
আমার সংসার সীমান্তে হেঁটে যাওয়া।
তোমার জীবন যদি আমায় দান না করতে
আমার বেঁচে থাকা হতো সম্ভাবনাহীন।
তোমার জন্যই নারী আমার অকপট শ্রদ্ধাঞ্জলি।

তুমি যদি না হাসতে
আমার আকাশে আলোময় নক্ষত্র ফুঁটতো না।
নিকষ অমানিশায় হারাতো আমার মুগ্ধতা।
সাজানো বাগানপাট বিরান হয়ে পড়ে থাকতো।
উশর মরুভূমিতে বইতো না কভু
আকণ্ঠ পিয়াসের ঝর্ণাধারা।
অসহায় তরুলতা বৃক্ষরাজি সকল
ফুলের আকুলতায় ব্যকুল হতো।
তোমার জন্যই নারী আমার পূজার আয়োজন।

তুমি যদি সুন্দর না হতে
রমণীয় সৌন্দর্যের কথা আমার জানা হতো না।
তোমার দেহজ ছন্দে আমার দৃষ্টিপরে জাগতো লোভ
নিষিদ্ধ চাওয়ার ভিড়ে তুমি হতে রিক্ত।
অদৃশ্য বক্ষবন্ধনীর আড়ালে তোমার হৃদকম্পন
আমায় প্রেমিক হতে বলতো না।
হৃদয় পটে আঁকা হতো না কোন ছবি
গভীর মমতায় যার বসবাস।
তোমার জন্যই নারী আমার সবটুকু ভালবাসা।

তুমি যদি নারী না হতে
অনাসৃষ্টি ঘটতো পৃথিবীতে।
আমি কিম্বা আমরা সবাই হতাম মনুষত্যহীন
অসভ্যতার আদলে গড়ে উঠতো মানবতা
গাঢ় অন্ধকারে ডুবে থাকতো জীবন।
আমাদের হৃদয় হতো ভালবাসা বিমুখ
প্রেমিক মন নিয়ে কাছে আসা হতো না কারো।
আমি কবি হতেম না মোটেই।
তোমার জন্যই নারী আমার এমনতরো কবিতা।