তারার উঠোনে জেগে থাকা রাতে,
হৃদয়ের অন্তস্থল থেকে উৎসারিত ভালোবাসার টানে,
তোমাকে আজ পড়ছে মনে।
ওই দুর নীলিমা ছুঁয়ে আস না…
স্বপ্নাতুর নয়নে, উচ্ছসিত আনন্দে দুবাহুর দৃঢ়বন্ধনে-
আবদ্ধ করে উত্তাল বলে যাই
কি রহস্য লুকিয়ে আছে এ জীবনের অন্তরালে ?
আমি আজ গর্বিত তোমাকে পেয়েছি বলে।

হৃদয়ে পুষে রাখা সুগভীর ভালোবাসা
তোমাকে আজ দেব বলে-
জোছনার রুপালী রশ্মীভেলা, জলপ্রপাতের জলের খেলা;
ঝরনার সুললিত বারিধারা, আকাশের নীল,
বাতাশের শীতলতা, স্রোতস্বিনীর নীড়,
গোলাপের সুরভীত কাননগুলো-
রঙের তরঙ্গে ভেসে অপেক্ষমান।
এ আনন্দে গর্বিত আমার চটুল প্রাণ।

আমার জীবনের সব ব্যর্থতা ও হাহাকার
ভুলিয়ে দেয় তোমার সান্নিধ্য। যেমন-
সন্ধ্যায় হাসনাহেনার মনোমুগ্ধকর ঘ্রাণ
আমাকে ভীষণ আলোড়িত করে।
আমি তোমার শরীরে কাঁঠালচাঁপা ফুলের গন্ধ পাই
তুমিও পাও নিশ্চয়ই !
গভীর সমুদ্রে গাঙচিলের মতো ভেসে বেড়াবো
তোমার বিশ্বস্ত, নির্ভরতার গর্বিত হাতটি ধরে।