কৈশোর পেড়িয়ে যখন যৌবনে পা দিলাম
তখনই প্রথম ভাল লাগার ছোঁয়ায় ছুঁয়ে গেলে তুমি।
স্বপ্ন ডানার আলোকিত বিজলীর মত
মেঘের কার্নিশে কয়েকটি মুহূর্ত দাড়িয়ে ছিলে
আমি তাকিয়ে দেখলাম তোমার ঐশ্বর্য
কখন যেন অদৃশ্যমান হয়ে গেলে তুমি?

আজ দিনের সমষ্টিতে কেটে গেছে যুগ_যুগান্তর
আর আমি পাগলপারা হয়ে ছুটে চললাম তোমার খোঁজে
তুমি কি জানো ?
খুঁজেছি তোমায় কত নিঃসঙ্গ বিকেলে
ধানসিঁড়ি কীর্তনখোলার তীরে।
খুঁজেছি তোমায় বিস্তীর্ণ ধান ক্ষেত কৃষ্ণচূড়ার মগ ডালে
কোকিলের কুহুতানে।
খুঁজছি তোমায় মেঠো পথ ভাউলের একতারার সুরে,
শরৎ বেলায় খুঁজেছি কাশবন, বক পাখী ,ডাহুকের খর কুটার নীড়ে,
গ্রাম-গ্রামান্তরে বন_বনান্তরে।

আজ সময়ের ব্যবধানে ভুলে গেছি ঐ পথের মায়া
হয়েছি শহুরে বাসিন্দা, জেনো এক সার্কিট গাঁথা যন্ত্র মানব!
তবু এই যান্ত্রিকতার মাঝে আজো খুঁজি তোমাকে
রমনার বটমূল, শহীদ মিনার, অপরাজয়ো বাংলার নীচে।
খুঁজি তোমাকে বেঙ্গল গ্যালারীতে
হসেম খান, কাইউুম চৌধুরির স্বপ্নিল ক্যানভাসে।
বাংলা একাডেমী'র বইমেলায় হুমায়ূন আহমেদের
নন্দিত উপন্যাস গল্পের মাঝে ,
কখনো খুঁজি মহাদেব শাহ্'র অভিমানী কবিতায়
বশিরুজ্জামান বশিরের রিক্ত পংক্তমালা, এ্যসিড ঝলসানো স্বপ্নের ভাঁজে।

খুঁজে_খুঁজে আজ আমি দিশেহারা
তবুও খুঁজি সিলেটের চা বাগান, সুন্দর বনের হিরণ পয়েন্ট,
কুয়াকাটার রাখাইন পল্লী, নাটোরের কাঁচা গোল্লার রসে।
খুঁজেছি তোমায় হিরোসীমায় পারমানবিক ধ্বংসযজ্ঞে,
বোমারু বিমানে ঝলসে যাওয়া বাগদাদ নগরীর
অসহায় নারীদের ভিড়ে।
খুঁজেছি তোমায় ইন্দোনেশিয়ার সুনামি আক্রান্ত বেলাভূমি
পাষাণ সাগরে ঢেউয়ের অতলে,
নির্দয় সিডরের তাণ্ডবে।

ও..হ....বন্ধু আর কত কাল খুঁজব তোমাকে।