আমি ব্যর্থ জীবন-পাহাড়ের চূড়ায় দাঁড়িয়ে,
সম্মুখে তাকাই বটে_ কোন পথ নেই।
শুধু দূরে আকাশ মিশেছে নিস্তরঙ্গ সমুদ্রের পাতায়।
আমার পেছনে ধূসর বন _ হিংস্র জন্তুর উচ্চ-ধ্বনি শোনা যায় কেবল।
কখন কীভাবে এখানে এলাম তা আজও অজ্ঞাত,
শুধু জানি, আমি পথিক _ আশ্রয়হারাদের গোত্রভুক্ত।
আমার চাষজমি ছিল, ছিল বাসস্থান আর আত্মীয়-অনাত্মীয়,
আমার বন্ধু ছিল অপ্রতুল _ জীবনের স্রোতে তারা আজ হল হারা।
হঠাৎ আমার সুখ চলে গেল সূর্যাস্তদের সাথে সাথে _
প্রথমে হলাম আশ্রয়হারা, এরপর এতিমের মতো কেউ আমায়
দিল না এতটুকু সুখের আশ্রয়।
বাবা বেঁচে থাকলে ভালোই হতো বোধহয়।
জমিদাররূপী কুৎসিত সভ্যতা আমার কেড়ে নিয়েছে ভূমি
সেখানে প্রতিনিয়ত বাচ্চা দেয় মাটি-পোড়া ইট_ সভ্যতার জঞ্জাল।
এখন আমার পায়ের তলায় কেবল কষ্টের পাহাড়
সে পাহাড় গলবে না, বইবে না অশ্রুধারা নদী হয়ে।
মাথার ওপর তপ্ত রবির তীব্রতায় আর পোড়ামাটির
গন্ধের নিষ্ঠুর সি্নগ্ধতায় আমি যেন
পাহাড় হয়ে গেছি _ কষ্টের পাহাড়।