স্বপ্ন রেখেছি শ্রান্তির কোলে জমা;
সারাটা দুপুর উপেক্ষা রোদে পুড়ে-
বিকেলে জ্বেলেছি আবীর ছড়ানো ক্ষমা।

প্রেম, প্রণয়- বুঝিনি কী, কোনোদিনও।
চোখের শিশিরে ভিজে ভিজে সারা নিশি
নুয়ে আছি যেন সকালে সিক্ত তৃণ।

সময় যখন প্রতি পলে হয় লীন।
গুণে-বেছে দেখি নবোঢ়া সে বৈশাখে-
কিছু জমা নেই, শুধুই বেড়েছে ঋণ।

বাইরে যখন বিসুভিয়াসের লাভা;
উদরে আগুন- ঢেলে দেয় অক্লেশে।
জনপদে তার তীক্ষ্ণ নখর, থাবা-

ভেতরে তখন একাই পুড়েছি ধূপে।
তপোবনে এক প্রাচীন মুনির মত-
ধ্যান ভেঙে গেছে মেনকা-মোহিনী রূপে।