ছলকে ওঠা আর্তনাদের তীব্রতা
নিয়তই বয়ে চলি- গায়ে, মাথায়, রক্তের
প্রতিটি বিন্দুতে। অমোঘ মধ্যটানে কেবলই
প্রোথিত হই দৈনন্দিন দ্বিধার জমিনে।

মধ্যবিত্ত বোধ, সংকোচ, সামাজিক দায়
দেনা- সবকিছু মেনে চলি; তুমিই অচেনা।
আয়নার এপারে ওপারে, নিজের সাথেই
আজন্ম যুদ্ধ এক। নিজেকেই খুন করি-
নিজেকেই বাঁচাই।

এ এক দারুণ খেলা। বেগবান
সময়ের ভাঁজ খুলে তবু- স্বপ্নপ্রাপ্ত
মালিশের শিশি হাতে কে এক
ফেরিওয়ালা সমানে হেঁকে চলে।

আহা যদি এমন হত; কোন এক মায়াবী
প্রহরে- লোকভয়, ধর্মের বিভ্রান্ত
দেয়াল; সমস্ত নিষেধ মানা, মানবিক
চৌকাঠ- আচমকা পেরিয়ে গিয়ে

সামগ্রিক দ্বিধাজাল নিমেষেই
ছিঁড়ে খুঁড়ে- তোমার ঘরের কাছে
নিঃসংকোচ পৌঁছে যাই। তোমাকে
ছিনিয়ে আনি-

তোমার ভেতর থেকে