এমন একটা দেশ বলতো কোথায় খুঁজে পাবে ,
সব কিছুতেই প্রানের মাঝে শান্তি ছোঁয়া দিবে!

কোথায় পাবে নায়ের মাঝির দরাজ গলার গান,
মাল্লা দলের গানের তালে লম্বা গুনের টান;
খালে-বিলে জলকেলিতে ব্যস্ত ছেলের দল,
লজ্জাবতী গ্রাম যুবতী পায়ে রুপার মল;

কোথায় পাবে পুকুর ঘাটে শান বাধানো ঘাট!
হরেক রকম সদাই নিয়ে গ্রাম্য বাজার হাট,
বটবৃক্ষের ছায়ায় বসা রাখাল ছেলের বাঁশি,
পুকুর ঘাটে কলসী কাঁখে রাঙা বঁধুর হাঁসি;

কোথায় পাবে ভোরের আগেই মোরগ ডেকে উঠা!
কৃষকদের সব চাতাল মাথায় কাজের তরে ছোটা;
ভর দুপুরে কৃষাণীদের খাবার নিয়ে যাওয়া,
ক্ষেতের ধারে আচল পেতে একই পাতে খাওয়া;

কোথায় পাবে সিদ্ব ধানের এমন সোঁদা গন্ধ
বাড়ীর কোনে ঢেঁকির বানের ঢাক ঢুক ঢূক ছন্দ
শীতের সময় পিঠা-পুলির হরেক বাহারি
সারি সারি খেজুর গাছে মিষ্টি রসের হাঁড়ি।

কোথায় পাবে আঁকাবাঁকা এমন মেঠোপথ,
বছর জুড়ে রঙিন সাজের হরেক রকম রথ;
ফেরিওয়ালার ফেরি করার মিষ্টি মধুর ডাক,
যাত্রা পালায় অভিনেতার উচ্চ কন্ঠের পাঠ;

কোথায় পাবে সন্ধ্যাবেলায় পালা গানের সুর,
গায়েন দলের যুক্তিতর্ক কন্ঠ সুমধুর;
পল্লী গীতি, ভাটিয়ালি, হাসন রাজার গান,
লালন সাইয়ের গানে কাঁদে ভক্ত হাজার প্রান।

এমন দেশ যে একটাই আছে প্রিয় বাংলাদেশ,
জন্মভুমি মাগো তোমায় ভালবাসি বেশ।