ফাগুন দিনের এক সকালে
ভালবেসে আমার পানে হাত বাড়ালে
পলাশ, শিমুল, কৃষ্ণচূড়ার রাতুল ডালে
লক্ষ কোটি চন্দ্রালোকের আলোক জ্বেলে
অবাক করে আমায় তুমি ছুঁয়ে গেলে।
ভাসছি হাওয়ায় নীলাভ সুখে প্রহর জুড়ে
অহর্নিশি কাটছি সাতার
তোমার গহীন হৃদয় তলে
মেয়ে, কেন অমন উদার হলে?
তপ্ত খরায় বাউরী হাওয়ায় নাও ভাসালে
বিবাগী মন জড়িয়ে নিলে মায়ার পালে
প্রতীক্ষাতে লক্ষ দিবস ছিলাম গুনে
অযুত নিশি পার করেছি নিদ্রাবিনে ।
চোখের বনে আর্ট গ্যালারী তোমায় ভেবে
শব্দে বুনট গল্প গাথাঁ পাহাড় ছোঁবে,
বুকের মাঝে কাব্য নদী ঢেউয়ের দোলায়
সুরে সুরে ছন্দবাধাঁ অজর কথায় ।
সেই তুমি আজ দ্বিধা ভুলে কাছে এলে
শীতল দেহে অমোঘ প্রাণে আগুন দিলে,
পুড়ে পুড়ে হয়েছি খাক প্রণয় জলে
হাত ভরেছি ভালোবাসায় তারার ফুলে।
এই ফাগুনে তুমি আমার শ্রেষ্ঠ সকাল-
জোৎস্নাধোয়া রাত্রি হবো,
তোমার জন্য;চিরটাকাল।