যতদূরে যাই-আত্মার গহীনে
সূক্ষ্ম একটা টান থেকে যায়
মুখোমুখি বসে ইচ্ছেমতো বলি যা মন চায় ।
সহস্র অভিমান, করুন জল,নীলাভ কষ্ট
তারপর বিভাজিত পৃথক দুটি পথ
বিষণ্ণ ধূসর মেঘে একদিন হারিয়ে যায়...
ঠুনকো ভুলচুকগুলি ভাসিয়ে চৈতালি হাওয়ায়
আসবে বলে একদিন তোমার নীল খাম
এই প্রতীক্ষা, স্বপ্ন দেখা, পথ চেয়ে থাকা-
নির্জন অরন্যে পাখিদের ঘড়িতে প্রহর গুনে যাই
পাজরের ক্যানভাসে চোখ দুটি কথা বলে দৈবাৎ
কখনো সখনো মুখটা উঁকি দেয়; নীল জোছনায় ।
অজস্র কথা মেঘ হয়ে জমে অভিমানী বৃষ্টি নামায়
কোমল সবুজে ছেয়ে যায় বুকের প্রান্তর, মিহি পথ
তবুও যদি না ভিজে সেই নির্লিপ্ততার পাহাড়
কোন এক শ্রাবণে বৃষ্টি শেষে রঙধনু হয়ে যাবো-
তারপর নিবিড়তায় ছুঁয়ে দেবো অধর তোমার !