হিসেব কষার দিন শেষ, জীবন নিয়ে হিসাবের ইতি
এই, তুমি আমি কী বাড়াতে পারি না এবার মনের সম্প্রীতি!
নুয়ে পড়েছো বয়সের ভারে, দোয়েল সময় আর ডাকে না!
নুয়ে পড়েছি আমি, মন তোমায় নিয়ে আর স্বপ্ন আঁকে না।
সময় ছিলো যখন, দাম্ভিক তুমি সরে গিয়েছো স্বপ্ন হতে
দাও নি অনুভূতির মূল্য, সম্মান করোনি কখনো মতামতে।

কত আর নিজের সাথে কথা বলি বলো, হাঁপিয়ে গিয়েছি
এতদিনে আমি যেনো তোমায় ঠিক চিনে নিয়েছি!
বদলে যাচ্ছো ধীরে ধীরে, দেহ নরম হওয়া শুরু বুঝি?
আমি এখনো তোমার ঘুমন্ত মুখে কেবল অহম খুঁজি।
মনের বাড়ি বাজে ভাঙ্গা রেকর্ড, মন ভাঙ্গানী গান
শুনো না, আমার ঠিক
এখনো সেই সব দিনে ফিরে যেতে মন করে আনচান।

কী লাভ হলো বলো? চলে গেলো ফুলেল দিন, প্রজাপতি সময়
এখন আর কী হতে পারি তোমার প্রেম ভালোবাসায় তন্ময়?
এই বকে যাচ্ছি একাকি, ভিতরে ঝড়, সাঁই সাঁই কষ্ট তুফান
ভাবছি কেবল, কী করে পার হলাম জীবনের সতেরো সুপান!
মনের আগল আধখোলা রয় পড়ে, তুমি নেই আর এ ঘরে
শব্দের নদীতে ভাসছি একাকি, ছন্দ সাজানো মনে থরে থরে।

কেঁপে যায় মন, ভাবি তোমার কথা, কী করে কাটাবে বাকী জীবন
সবাই ছেড়ে যাবে তোমায়, যাদের ভাবো আপন,একাকীত্বে তোমার ভুবন,
অসাড় দেহ আমার শব্দের ডাকে ফিরে সম্বিত, আমি লিখি কবিতা
মাত্রা তাল লয়, প্রকৃতি ছন্দ নদী পাহাড়, তুমি ছাড়া আপন সবই তা।
ভিজো তুমি একাকিত্বের শিশির জলে, ভিজুক তোমার অহম মন
তুমি কাঁপো কষ্টের ঢেউয়ে, মনে লাগুক ধাক্কা, জাগুক কষ্ট শিহরণ।