একবার হও নতজানু-অনুশোচনায় নয় প্রেমে
একবার চাও ক্ষমা-ভালবাসা পারো নি দিতে তাই!
তাকাও ভালবাসায়
ভালবাসায় এসো ধুয়ে দেই বক্ষ তোমার যত আছে অভিযোগ
একবার বলো, নারী তুমি নও ছলনাময়ী, মায়াময়ী।

মোহিনী কামিনী নয় নারী
নারী তোমার মা-বোন-কন্যা-স্ত্রী
একবার সম্মানে হও নত।

পুরুষ তুমি-নও ঈশ্বর.....
তোমার পদতলে হতে পারে স্বর্গসুখ তবে
নারী মা, তার পায়ের নিচে তোমার জান্নাত।

একবার ভালবাসাবাসির পরামর্শে হও লিপ্ত
নারীর আবেগ বুঝতে একটু হও সচেষ্ট
নারী নয় পাথর কিংবা আগাছা
ছুঁড়ে ফেলো না অবহেলায়।

তোমার ভেতরের কাপুরুষটাকে- এসো করি শাসন
যত অহম মনে তোমরা পুরুষ বলে,
এসো অহম চুরমার করে দেই ভালবেসে
নরম হও।

নারীর ভিতর সেঁটে দিয়ো না তোমার মতামত
একবার কান পেতে শুনো ভিতরের আহাজারি
কত না বলা কথার ছন্দ আকুলি বিকুলি উথলায় বুকে
শুনো নিবিড় কান পেতে।

পুরুষ তুমি হয়ো না কামুক....
তাকিয়ো না ঐ রাস্তার ছিন্নমূল ষোড়শী পানে
চোখ মুদে তার জায়গায় বোনকে ভাবো!
একবার তুমি পুরুষ হও....
জোরে চেপে বসো না অবলার দেহে
মোহ কাটিয়ে দাও, এসো শুদ্ধতায় প্রেম শিখাই
এসো নিশ্চিন্তে স্বস্তি দেই।

পুরুষ তুমি কামে হয়ো না হিংস্র
ছুরি বসিয়ো না বুকে কোন এক নারীর
সে তোমার আপনজন,
মা - ভেবে নাও তোমার কন্যা
এসো এখানে সম্পর্কের মূল্য শিখাই
অনুধাবন করো নারীর মূল্য।

পুরুষ তুমি, কর্তৃত্ব হাতের মুঠোয় নিয়ে হুকুম করো না জারি
ভালবেসে হাত রাখো আলতো কাঁধে
সর্বস্ব দিতে হবে রাজি অনায়াসে নারী
তার আবেগে ঢেলে দাও প্রেম, বৃথা যাবে না স্বার্থপর পুরুষ
একবার আবেগ ছুঁয়ে দাও।
নতজানু হও পুরুষ, ভালবাসার জাল দাও বিছিয়ে
দেখে নিয়ো, সে নারী শুধু তোমার হবে, জিয়ন ও মরণে।