আমি জানিনা আমার দেওয়া কবিতাটা উল্লেখিত বিষয়ের সাথে কতটুকু সমঞ্জস্যপূর্ণ, তবে আমার মনে হয়েছে হয়তো এটা বিষয়টির সাথে যায়। কারন, কবিতাটি আমি লিখেছি এমন একজনকে বর্ণনা করে যাকে দেখে তার প্রতি আমি একটা অপার্থিব আকর্ষণ অনুভব করেছি যা আগে কোন কিছুতেই অনুভব করিনি। আমার মধ্যে জাগ্রত এই অনুভব অনুভূতি নিঃসন্দেহে আমার ভাল লাগা থেকে সৃষ্টি আর এই ভাল লাগাটাকেই আমার কাছে প্রেম বা ভালবাসার অংশ মনে হয়েছে । যদিও আমার জানা নেই সত্যিকার অর্থে প্রেম ভালবাসা কি আর কি এটার প্রকৃত উপাদান। আমি কবি কিংবা সাহিত্যিকও নয় ভাষার মধ্যেও আমার কোন দখল নেই যে লিখে বিষয়টির সাথে আমার লেখা কবিতাটির সমঞ্জস্যতা বিশ্লেষণ করব। তবে যেহেতু আমি এটা আমার ভাল লাগা একটা অনুভূতি থেকে লিখেছি তাই আমার মনে হয়ে এটার প্রেমের কবিতা আর এটা বিষয়ের সাথে সমঞ্জস্যপূর্ণ । আমার চাইতে আপনারাই ভালো, সুন্দর এবং প্রাঞ্জল ভাষায় এটা বিশ্লেষণ করতে পারবেন।
-লেখার সাথে বিষয়ের সামঞ্জস্যতা ব্যাখ্যায় লেখকের বক্তব্য

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ৩ মার্চ ১৯৮৯
গল্প/কবিতা: ১টি

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftকবিতা - প্রেম (ফেব্রুয়ারী ২০২০)

প্রিয়জন
প্রেম

সংখ্যা

মোঃ আল-আমিন মোল্লা

comment ৮  favorite ৪  import_contacts ১০৭
বাসন্তি রং শাড়ী ছিল তার,
দুধে আলতা গায়।
হাতে ছিল তার সোনার চুড়ি,
রূপার নূপুর পায়।

নাক ছিল তার নোলক পড়া,
কানে ছিল তার দুল।
চুলগুলো তার কাজল কালো,
খোপায় ছিল ফুল।

ভ্রমর কালো চোখ দুটো তার,
ঠোট দুটো তার লাল।
মায়ায় ভরা মুখ খানা তার,
লজ্জায় রাঙ্গা গাল।

অপরূপ এক রূপবতী,
যেন সদ্য ফুটা ফুল।
পবিত্র তার মুখের হাসি,
হৃদয়ে জাগায় দুল।

বসন্তের এক শেষ বিকালে,
দেখা হলো তার সাথে।
নগ্ন পায়ে হাটছিলো সে,
গাঁয়ের মেটো পথে।

প্রথম দেখেই ভালোবেসে,
দিলাম তারে মন।
সে যে আমার ভালোবাসা,
আমার প্রিয়জন।

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement