হে আমার বঙ্গমাতা,
তোমার বুকের ফসলের মাঠে
স্নিগ্ধ বাতাস আর খেলা করেনা।
সন্ধার বাঁশঝাড়ে ঝাঁকবেধে শালিকেরা
কিচির মিচির আর ডাকে না।
তবে মধ্যরাতে হঠাৎই কিছু শিয়ালের হাক
এখনো শোনা যায়।
যদিও তাদের গলায় ফুটে উঠে আজ
শুধুই সকরুণ আর্তনাদের স্থবিরতা।
পিশাচদের ধারালো ছুরির হিংস্রতায়
তাদের হ্রদপৃন্ডে ফুটে উঠে বীভৎসতা।
হে আমার বঙ্গমাতা।

তোমার দেশের কৃষ্ণচুড়ার কচি কচি
ডাল ভেঙ্গে আজ জঙ্গিরা করছে যাচ্ছেতাই।
পলাশ ফুলেরা আজ বোমার আঘাতে
ঝুরঝুর করে ঝড়ে পড়ছে পিচঢালা রাস্তায়।
ওরা তোমার সবুজ শাড়ির সাথে
লাল রঙের টিপ পড়তে দিবে না।

ভয় নেই মা, রাস্তায় ঝড়ে যাওয়া
বুকের তাজা রক্ত দিয়ে
তোমার কপালে পড়িয়ে দিব,
লালটিপ।
প্রতিদিন।