বৈশাখ তুমি এলে বলেই
বাঙ্গালীর দুঃখ কষ্ট শোক
হারিয়ে যায় বহুদুর ,
চারদিকে বাজতে থাকে
খুশির উন্মাতাল সুর ।
পুরনো হিসেব নিকেশ
বাকির লেনদেন
চুকে যায়
বৈশাখী হালখাতায় ।
পাড়ায় পাড়ায়, মহল্লায় মহল্লায় ,গ্রামে গ্রামে,
বটের তলে ,নদীর ধারে, পুরনো মন্দিরে ,
বসে বৈশাখী মেলা ।
পার্কে শহরে বন্দরে
বড় আয়োজন হয় বৈশাখীর ,
সকাল থেকে সন্ধ্যা অবধি চলে
বিভিন্ন রকম ভর্তা
আর পান্তা ইলিশের আসর ।
শাখাঁ আর চুড়ির ঝংকারে
ঢাক ঢোল বাদ্যের তালে তালে
জমে উঠে বৈশাখী মেলা ।
বুড়ো মানুষটি ও ভালবাসার মানুষের জন্য
নিয়ে আসে আলতার পেয়ালা ।
শিশুরা দোল খায় নাগরদোলায়
পথশিশুটি বৈশাখী আয়োজনে মাতে ।
সব রং মিশে
বৈশাখী রং হয়ে যায়
ধম বণ জাত থাকে না
এদিন সবাই হয়ে উঠে বাঙ্গালী ।
আর বৈশাখ হয়ে যায়
বাঙ্গালীর প্রানের উৎসব ।