সবুজ শ্যামল স্নিগ্ধ কোমল, বাংলা মা তোর বদন খানি-
তোর ধূলি কনাই পরশ পাথর, তুই যে আমার জন্মভূমি।

আকাশ বাতাস মুক্ত পাখি, রাখালী বাঁশির সুর-
বক্ষে মা তোর মানিক রতন, পাই যে স্বর্গ সুখ।

বাংলা মা তোর জন্ম যখন, অবাক বিশ্ববাসী-
রক্ত সাগর বক্ষে বুলেট, তবুও মুখে হাসি।

৭১এর যুদ্ধ ঝড়ে জীবন দিল অকাতরে, লক্ষ লক্ষ প্রাণ-
তবু যেন হয় না হরন, বাংলা মা তোর মান।

গর্বে আমার বুক ভরে যায় বিশ্বে তোমার স্বাধীন বেশ-
ত্রিশ লক্ষ শহীদের ত্যাগে পেলাম সোনার বাংলাদেশ।

বাংলা মা তোর আঁচল ছায়ে, বেঁধে রাখিস মোরে-
হইনা যেন পথ ভোলা ঐ শোষক পাপীর ডরে।

বাংলা মা তোর সন্তানেরা আজকে বিপথগামী-
ভাইয়ে ভাইয়ে করছে লড়াই, আনছে যে বদনামী।

বাংলা মা তোর কষ্ট বোঝার সাধ্য আমার নাই-
কষ্ট কমার মন্ত্র মা বল, কোথায় খুঁজে পাই?

দিলাম না তো তোকে কিছুই তোর কাছেতেই চাই-
বাংলা মা তোর পরশ পায়ে, শেষ বিদায়ে ঠাঁই।