তখন সাতকোটি মানুষের মনে জ্বলছিলো সুপ্ত আগ্নেয়গিরির আগুন ।
চোখে বিদ্রোহী ফাগুন । বজ্রমুষ্টিবদ্ধ হাত । কণ্ঠে স্বাধীন সুরের গুনগুন ।
পাকিস্তানিদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ, নির্যাতিত, ক্লান্ত- সকল বাঙালি বুক ভরা আশায় –
সামাজিক, রাজনৈতিক, সাংস্কৃতিক আর অর্থনৈতিক মুক্তির প্রত্যাশায়-
একটি মুজিবের, একটি তর্জনীর নির্দেশের অপেক্ষায়-
তাৎক্ষনিক সাড়া দিতে- সদা জাগ্রত অতন্ত্র প্রহরায় ।


৭ মার্চ ১৯৭১, রেসকোর্স ময়দান, ঢাকা ।
পুরো ময়দান জনসমুদ্র । উৎসুক সব চোখ –
একটি মুজিবের, একটি তর্জনীর নির্দেশের অপেক্ষায়-
নেতা আসলেন, আঙুল উঁচিয়ে বললেন –
“এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম,
এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম
জয় বাংলা” ।


এরপর, ৯ মাস
নতুন ইতিহাস !


একটি মুজিবের, একটি তর্জনীর নির্দেশে - একটি যুদ্ধ ।
একটি মুজিবের, একটি তর্জনীর নির্দেশে - একটি বিজয় ।
একটি মুজিবের, একটি তর্জনীর নির্দেশে - একটি পতাকা ।
একটি মুজিবের, একটি তর্জনীর নির্দেশে - একটি জাতি ।
একটি মুজিবের, একটি তর্জনীর নির্দেশে - একটি মানচিত্র ।
একটি মুজিবের, একটি তর্জনীর নির্দেশে - একটি বাংলাদেশ ।


এবার আমার কথা বলি –
যতবার ৭ মার্চের ভাষণ শুনেছি-
ততবারই কল্পনায় রেসকোর্স ময়দানের জনতা হয়েছি !
এই প্রজন্মের এই আমি কৃতজ্ঞ সদা –
একটি মুজিবের, একটি তর্জনীর নির্দেশে -
জন্মেই পেয়েছি প্রিয় বাংলাদেশ, প্রিয় স্বাধীনতা ।