কৈশোরকালে, এক কিশোরীর প্রতি কিশোরের তীব্র এক আকাঙ্খার প্রতিচ্ছবি ফুটে উঠেছে এই কবিতায়। কিন্তু কিশোরীর নির্বিকারতা কৃপণা সেই কিশোরকে ভাবিত করে তোলে, জীবন বহতা নদী, জীবন তার নিয়মে বয়ে চলে, এক সময় সেই কিশোরীর উম্মাত প্রেম ফিকে হয়ে আসে।
-লেখার সাথে বিষয়ের সামঞ্জস্যতা ব্যাখ্যায় লেখকের বক্তব্য

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ২৫ জুন ১৯৯০
গল্প/কবিতা: ৭টি

সমন্বিত স্কোর

৪.১

বিচারক স্কোরঃ ২.১ / ৭.০
পাঠক স্কোরঃ ২ / ৩.০

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftকবিতা - কৃপণতা (নভেম্বর ২০১৮)

তনয়া
কৃপণতা

সংখ্যা

মোট ভোট ১০ প্রাপ্ত পয়েন্ট ৪.১

আবু আরিছ

comment ৫  favorite ০  import_contacts ১৪৬
যখন ছিল মন বড়ই অধীর, উন্মত্ত পাগলা ঘোড়া
তখন তুই কেন ছিলি এত কৃপণা?
যৌবনের ঢেউ দেখিনি কি আমি তোর অঙ্গে
ভেজা পাতার মত তোর গালে জমেনি কি ঘামের শিশির বিন্দু,
নদীতে স্নান সেরে ফিরতি পথে
দেখিনি কি তোর ভেজা শরীরে লেপ্টে যাওয়া জামা,
কচি লাউয়ের ডগার মত কোমরের ভাঁজ,
নিতম্বের ক্রান্তিরেখা।
তবু তখনো বুঝিনি তুই শুধু নারী, বড়ই কৃপণা
রক্তে তোদের ছলনা,কৈশোরে হাত পাকানো পুতুলখেলা।

ক্রিকেট ব্যাট ফেলে যেতাম সেই পথের ধারে,
সমির কাকার সেলুনের পাশে দাড়িয়ে থাকতাম।
কখন আসবি তুই-
একটু সময়ের জন্য এসে দাড়াবি পুকুরপাড়ে
শুধু একবার হবে চোখাচোখি,
তাই নিয়ে হবো আমি বিজয়ী রাজার মত সুখি,
হায়! সেই একটি বারও চাসনি ফিরে তুই।

পাড় হয়ে এলাম জীবনের কত অলিগলি,
আনমনে কখন জানি ঝড়ে গেল আটাশটি বছর।
কোথায় আছিস, কেমন আছিস জানিনা
সমির কাকার সেই সেলুন আর নেই,
কলমি লতাগুল্মে ভরে আছে পুকুরের পার।
নেই আর সেই হাহাকার,
নেই আবেগে টইটম্বুর সেই সব ছেড়া চিঠির জঞ্জাল
বিকেলগুলিও আর আমাকে তেমনভাবে করে নাকো বিষন্ন,
সময় তার ধূসর আস্তরনে দিয়েছে মুছে দগদগে সব ক্ষত।

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন
  • নাজমুল হুসাইন
    নাজমুল হুসাইন পাড়-পার,ঝড়ে-ঝরে,পার-পাড় হলে বানানে পরিশুদ্ধতা পেত। তাছাড়া ভালো লিখেছেন।
    প্রত্যুত্তর . ১ নভেম্বর, ২০১৮
  • Nure Muntaha Shimu
    Nure Muntaha Shimu সুন্দর লিখেছেন।
    প্রত্যুত্তর . ১ নভেম্বর, ২০১৮
  •  মাইনুল ইসলাম  আলিফ
    মাইনুল ইসলাম আলিফ নেই আবেগে টইটম্বুর সেই সব ছেড়া চিঠির জঞ্জাল
    বিকেলগুলিও আর আমাকে তেমনভাবে করে নাকো বিষন্ন,
    সময় তার ধূসর আস্তরনে দিয়েছে মুছে দগদগে সব ক্ষত। //দুর্দান্ত কবিতা।আপনার লেখার হাত তো দারুণ।অসাধারণ......................অসাধারণ।শুভ কামনা রইল।আসবেন আমার কবিতার পাতায়...  আরও দেখুন
    প্রত্যুত্তর . ৫ নভেম্বর, ২০১৮
  • মোঃ মোখলেছুর  রহমান
    মোঃ মোখলেছুর রহমান প্রথম দিকে কিছুটা যৌনতা ঘেষা থাকলেও তা কাটিেয় শেষ স্তবক অসাধারন হয়েছে।লেখায় হাত ভাল নিশ্চিত বলা যায়।শুভকামনা রইল।
    প্রত্যুত্তর . ১৭ নভেম্বর, ২০১৮
  • মনতোষ চন্দ্র দাশ
    মনতোষ চন্দ্র দাশ বিরহজনিত কৃপণকতার কবিতা ভালোই লিখেছন।শুভকামনা নিরন্তর সেই সাথে ভোট রইলো।
    প্রত্যুত্তর . ১৭ নভেম্বর, ২০১৮
  • মোঃ নুরেআলম সিদ্দিকী
    মোঃ নুরেআলম সিদ্দিকী কবিতার ভিতরে দারুণ এক আবেগ ফুটে উঠেছে। সে প্রেম ছেড়ে অতঃপর আটাশটি বছর পাড়ি দেওয়া। অসাধারণ এবং মনোমুগ্ধকর। শুভেচ্ছা কবি।।
    প্রত্যুত্তর . ১৭ নভেম্বর, ২০১৮
  • আবু আরিছ
    আবু আরিছ মন্তব্য করার জন্য সবাইকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও ধন্যবাদ জানাই।
    প্রত্যুত্তর . ১৭ নভেম্বর, ২০১৮

advertisement