ইহলোকে অর্থাৎ এই পার্থিব জগতেই যে নরকের পাশাপাশি স্বর্গ, দুঃখের পাশাপাশি সুখের স্থান তাই সংশ্লিষ্ট কবিতাটিতে বোঝানো হয়েছে এক অবুঝ জ্ঞানহীন মানুষ ও মহান স্রষ্টার কাল্পনিক কথপকথনের মাধ্যমে। কবিতাটিতে বোঝানোর চেষ্টা করা হয়েছে পার্থিব জগতের একটি বিশেষ রূপ।
-লেখার সাথে বিষয়ের সামঞ্জস্যতা ব্যাখ্যায় লেখকের বক্তব্য

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ২২ আগস্ট ২০১৮
গল্প/কবিতা: ২টি

প্রাপ্ত পয়েন্ট

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftকবিতা - পার্থিব (আগস্ট ২০১৮)

ইহলোকে
পার্থিব

সংখ্যা

মোট ভোট

অনির্বান

comment ০  favorite ১  import_contacts ১০১
"ইহলোকে বাস করি। ” এ ভ্রম যৰে কাটিল
সময় যে পার হয়ে দ্রুত পায়ে হাঁটিল
মনে মনে বলি, “আহা কত কষ্ট হেখায়”
স্রষ্টা তব হাসে, বলে, "যাবিটা কোথা?”
স্বর্গে নাকি নরকে কোথা চাস তুই?
উভয়েরই স্থান যেথা থাকিস যে তুই।

দিবা স্বপ্ন দেখে আমি ঘুম থেকে উঠি,
চোখ মেলে তাকাই কোথা স্বর্গ নরক খুঁজি।
স্রষ্টা তবে মিথ্যা বলে জানা নাই মোর
হা হা, কী রঙ্গ হেথা লাগে ভীষণ ঘোর।
হঠাৎ সামনে আসি আলোর ঝটা পরে
বলিলেন, “ হে মূর্খ বোকা তাকা আকাশ পানে”
বলিলাম, “কেন তাহা করিতে যাৰ হায়?
মাটিই ভালো হেথায় তাকাই কোনো চিন্তা নাই।”
স্রষ্টা তবে হাত উঁচিয়া নির্দেশ দিলেন মোরে,
" বই পড়ে হে মূর্খ বোকা, জ্ঞান করো যে গ্রহে।
পৃথিবীতেই দুঃখ কষ্ট, এ ধরাতেই সব
সকল সুখে, বেদনার এ ধরাতেই রব।

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

    advertisement