মাঝরাতে প্রিয় মানুষের জন্য অপেক্ষা করাটা খুব মধুর হয়। কখন সে আসবে ইত্যাদি নিয়ে ভাবতে সবাই ভালবাসে। মাঝরাতে মানুষ নানান বিষয়ে পরিকল্পনা করে, কেউ কেউ মাঝরাত কে বেছে নেয় প্রিয় মানুষটার সাথে সময় কাটানো। সারাদিন পরিশ্রম করা প্রিয় মানুষটির জন্যও অপেক্ষা করে থাকে মুখটি দেখার জ। বাইরে জানালার দিকে তাকিয়ে থাকে অবির। যেন অপেক্ষার প্রহর কাটেই না।
-লেখার সাথে বিষয়ের সামঞ্জস্যতা ব্যাখ্যায় লেখকের বক্তব্য

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ১৪ এপ্রিল ১৯৯৫
গল্প/কবিতা: ২৬টি

সমন্বিত স্কোর

২.৯৮

বিচারক স্কোরঃ ১.৬৩ / ৭.০
পাঠক স্কোরঃ ১.৩৫ / ৩.০

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftকবিতা - আঁধার (সেপ্টেম্বর ২০১৮)

অপেক্ষা
আঁধার

সংখ্যা

মোট ভোট প্রাপ্ত পয়েন্ট ২.৯৮

নৃ মাসুদ রানা

comment ২৮  favorite ০  import_contacts ৩৮৬
নিরব চারিপাশ,খোলা জানালা।
বাইরে শীতল হাওয়া,ঝিঁ ঝিঁ পোকার ডাক।
জানালার পাশে আমি এখনো দাড়িয়ে।
পথের দিকে দুই চোখ।
সে কি আসবে?

মন উতালা,ঘুমহীন চোখ।
উদাস উদাস মূহুর্ত,কাটতে চাইছেনা প্রহর।
সে কি জানে আমি তার অপেক্ষায়?

অনেকগুলো অভিমান,হালকা কিছু রাগ।
ছটফট করছে হৃদয়,ধৈর্য্য হারিয়েছে মন।
আর কতক্ষন? এ অপেক্ষার।

চোখের কোণে কয়েক ফোটা জল,বুক ধরফর করছে।
জানটা বুঝি চলেই যাবে,সে কি জানে না আমি তাঁর পথের দর্শক?

টর্চ লাইটের আলো,কে যেন ছুটে আসছে?
অন্ধকার চারিপাশ।
পরিচিত কারও মুখের মতই ভাসছে।
আমি চমকে গেলাম। বুক ধুকধুক থেমে গেছে।
কখন যে চোখের জলটুকু মুছে ফেলেছি জানিনা।
দুই ঠোট হাসিতে ভরে গেল।
যখন মানুষটির কথার আওয়াজ শুনলাম।
অপেক্ষার প্রহর বুঝি শেষ হলো।

দরজা খুললাম। তাঁকে জড়িয়ে ধরলাম।
একটু কান্নার আওয়াজ।
বলো, আর কখনো এরকম করবেনা।
আমার বউয়ের ভাঙ্গা ভাঙ্গা কথা।

আজ অনেক দিন হলো। প্রায় দুই বছর।
সেই যে গিয়েছে আর আসিনি ফিরে।
সর্বনাশা ক্যান্সারে।
হারিয়ে গেছে চিরতরে।
যেন শত জনমের অপেক্ষাতে।

মাঝে দুই একবার এসেছিল।
থাকিনি বেশিক্ষন।
মিনিট দুই –তিন হবে।
কথা বলেছিল অনেক। উল্লেখযোগ্য একটা।
আজও আমি তোমার অপেক্ষায়।
তুমি কি শুনছো?

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement