ভ্যালেন্টাইন দিবসের নামে চলে ফুল আর খাবার হোটেলের ব্যবসা। উপহার দেবার পসরা বসে। সারা বছরে ভালবাসা নিশ্চয়ই কোথাও গুম হয়ে থাকে না! এই সব ভ্যালেন্টাইন দিবসে ফুল দিলেই ভালবাসা হয়ে যায় না। এই ভালবাসা তো অসুস্থ ভালবাসা। এসবই লেখা হয়েছে কবিতায়।
-লেখার সাথে বিষয়ের সামঞ্জস্যতা ব্যাখ্যায় লেখকের বক্তব্য

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ২৩ নভেম্বর ১৯৯১
গল্প/কবিতা: ৩টি

সমন্বিত স্কোর

১.২৭

বিচারক স্কোরঃ ০.৩৭ / ৭.০
পাঠক স্কোরঃ ০.৯ / ৩.০

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftকবিতা - ভ্যালেন্টাইন (ফেব্রুয়ারী ২০১৯)

কোথায় ভালবাসা?
ভ্যালেন্টাইন

সংখ্যা

মোট ভোট প্রাপ্ত পয়েন্ট ১.২৭

জারিফ অয়ন

comment ৬  favorite ০  import_contacts ২৩০
আমরা যারা মানুষ-মানুষে ভালবাসা ভুলে
রপ্তানি করা ভ্যালেন্টান এর নামে পাঁচ টাকার গোলাপ ত্রিশ হলে ভালবাসার পসরা বসাই,
আমরা যারা নদীর তীরে হাতে-হাত দিয়ে অচেনায় হাঁটায় শুধুই নিয়মিয়তা পাই,
আমরা যারা প্রতিদিন দুপুর বেলায় ক্লাশের ফাঁকে,
একসাথে বসে, বেশি হলুদ আর কম ডালের খিচুরি ওয়ালা ক্যাম্পাসে
ভালবাসার ছোঁয়া না পেয়ে, বিশ টাকার খাবার দু’শ টাকাতে কিনলে
প্রেমের সার্থকতা পাই। আমরা যারা আয়নার সামনে দাঁড়ালে শুধুই ছায়া দেখতে পাই
আমরা যারা এক জন ফুল না নিলে পর সেকেণ্ডে অন্যদিকে ঘাড় ঘুরাই
আমরা কি আসলেই কখনও ভিন্ন দেশের অচেনা সংস্কৃতিতে মাটির মত পবিত্র ভালবাসা খুঁজে পাই?
আমাদের ভালবাসা সব স্মার্ট ভালবাসা, এই ভালবাসাদের সব এণ্ড্রয়েড ক্যানসার।
এই ফেসবুকীয় অস্থির প্রেমের দাম মেগাবাইট মূল্য আর কলরেটের সাথে উঠা-নামা করে।
নতুন অফারে ভালবাসা জমে, অফার চলে গেলে ভালবাসা কমে।
নব্বইর আগে কোথায় ছিল ভ্যালেন্টাইন? ছিল সে বিদেশে, যেখানে তার জায়গা,
যায় যায় দিনের সাথে এসেছিল ভ্যালেন্টাইন
নিখোঁজ হয়েছিল ভালবাসা।
প্রেমের নামে এখন শুধু গোলাপ আর বিদেশি খাবারের হোটেল ব্যবসা,
মরে যায় ভালবাসা।

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement