ইট পাথরের বন্দি শহর,
বিষ মিশানো স্রোতের নহর,
মন টিকে না সেথায়।
ডাকছে আমায়, পল্লী মায়ায়
শিউলি লতায়, শিমের ছায়ায়
ফড়িং উড়ে যেথায়।

গাছে- গাছে, পাতায়- পাতায়,
আম- কাঁঠালের, জামের শাখায়,
কিশোর মনের খেলা।
সকাল- দুপুর- বিকাল- সাঁঝে
খালে- বিলে নদীর মাঝে
শাপলা- শালুক মেলা।

নাটাই হাতে ইচ্ছে ঘুড়ি
পাতাল হতে আকাশ ফুড়ি
লুকোচুরি খেলা।
লাটিম ঘুরায় মনের দুখে
দিনের শেষে মলিন মুখে
অভিমানী বেলা।

হাডুডু- গোল্লাছুট মাঠে
গাঁয়ের বধু নদীর ঘাটে
স্মৃতির জলে ভাসে।
সাত রঙ্গা রোদ- বৃষ্টি দেখে
পায়েশ কোমল শিশির মেখে
কৈশোরী মন হাসে।

ঘুম ভাঙ্গানো কিশোর প্রভাত
পল্লী মায়ের দুধ মাখা ভাত
লেগে আছে ঠোঁটে।
ছুটির ঘন্টার মায়ার জালে
লাল সবুজের রক্ত জলে
কৈশোরী ফুল ফোটে।