মাঝ রাতে পথশিশুটি আকাশ হারিয়ে ফেলে
জননীর অমৃত বাসি স্তন চেঁটে চেঁটে-
অ্যাঞ্জোলিনার আবক্ষ নগ্ন বিজ্ঞাপনে ছেয়ে গেছে
গিঞ্জি শহরের অলিগলি পথ আরে কংক্রীটের পাহাড়!
অন্ধ ধুলো কণারা শহরের বুকে আসড়ে পড়ে
ক্ষুধার্ত চোখ ঝলসে দেয় কালান্তক বিষ মেখে।
অতটুকু দেহে ফেঁপে উঠে ঝাঁঝালো কান্নার ক্ষুধার্ত ঢেউ
ফ্লাইওভারের নীচে হয়তো উচ্ছিষ্ট্যের নতুন গন্ধের ভোর অপেক্ষা করে!
গ্রহ-নক্ষত্র চেঁটে মাংসের গন্ধ শুঁকে ওই নেংটুদের কেউ
খুনি জিহ্বাটা তন্ময় হয়ে দেখে- আহ! জীবন কি অম্ল-মধুর!
ডাস্টবিন তারপর আকাশের অসংখ্য তারার ক্ষত চিহ্ন
যেন কোন বুভুক্ষ ভিক্ষারীর কামড়ের চূড়ান্ত আঘাত
হানে একটুরো বাসি রুটিতে, কয়েকটি দাঁত আরো শানিত হয়।
সোডিয়ামের আলোয় ভেসে গেছে পাঁজরের অলিগলির স্রোত
এবার বাস্তুহারা কলির বেরিয়ে পড়ার নিত্য ভোর।