এই সংখ্যার বিষয় হলো কষ্ট। যা পাঁচটি কুকুরছানার জীবন ধারণের মধ্যে তুলে ধরা হয়েছে।কবিতাতে কয়েকটি কুকুরছানার কথা উল্লেখ করা হয়েছে। ফাগুন মাসের তীব্র শীতে তাদের মন্দিরের পাশে শ্মশানের এক গর্তের মধ্যে তাদের গুটিশুটি মেরে শুয়ে থাকতে হয়। ফাগুন মাসের ঠান্ডায় তাদের কষ্ট হয়। কিভাবে এই কষ্টকে সহ্য করে তারা জীবন যুদ্ধে টিকে থাকে এই ব্যাপারটাই তুলে ধরেছি আমার কবিতায়।
-লেখার সাথে বিষয়ের সামঞ্জস্যতা ব্যাখ্যায় লেখকের বক্তব্য

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ৬ নভেম্বর ২০১৯
গল্প/কবিতা: ৩টি

প্রাপ্ত পয়েন্ট

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftকবিতা - কষ্ট (জানুয়ারী ২০১৯)

গহ্বরে
কষ্ট

সংখ্যা

Mahin Iqbal

comment ২  favorite ০  import_contacts ৭৭
মন্দিরের পাশে সেই শ্মশান ঘাটে,
নিস্তরঙ্গ ছায়ার পিটে ।।
এক গহ্বরের সেই নিঃঝুম নালায়,
পাঁচটি কুকুরছানা সেঁটে।
ঠান্ডায় জড়োসড়ো জনমানবহীন শ্মশান
এক মাসও হয় নি, নেই কোন আবাসন
শুধু রয়েছে সেই গহ্বর!
যে গহ্বর উদিত হয়েছে মন্দিরের ভাঙ্গা ইটের খাঁদে
পাঁচটি কুকুরছানার জীবন সংসয়ের অংশীদার।।
কিন্তু নেই কুকুরছানাগুলোর পরাজয়ের অঙ্গীকার,
ফাগুন মাসের তীব্র ঠান্ডায়
জীবন যুদ্ধে অতি কষ্টে টিকে থাকায় তাদের জয়জয়কার।
যায় দিন, যায় ঋতু,
কুকুরছানাগুলো হয় বড়
মাঠে দাপিয়ে নিজ রুগ্ন শরীর নিয়ে
পুরোনো স্মৃতিগুলো পিছনে ফেলে দিয়ে
বেঁচে ফিরেছে তারা।
কিন্তু ভুলে না তারা ছায়ার গহ্বর
মন্দিরের পাশে সেই শ্মশান ঘাটে
ভুলে না তারা এই গহ্বর দ্বারা
জীবন যুদ্ধে জয়ী হওয়ার প্রথম পদক্ষেপ নিয়েছিলো তারা।।

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement