আমার দখিনের জানালাটা
খোলাই ছিল!
হুর হুর করে ঢুকে এসেছিল
এক ঝাপটা এক রঙা, বেরঙা বাতাস!
সে বাতাসের গায়ের স্নিগ্ধ গন্ধটা আমায়
বারংবার বলে যাচ্ছিল!
বলছিল.....
'এই তো! আমি এই তো এসেছি!'

আমি তখন নিশ্চুপে দাঁড়িয়ে ছিলাম
আমার দখিনা জানালাটার এক পার্শ্বে!
আমি প্রাণ ভরে নিশ্বাস নিচ্ছিলাম!
আর অনুভব করছিলাম...
বেরঙা বাতাসটা আমার দীঘল কালো চুলে...
এলোমেলো লুটোপুটি খেলছে!

বাতাসের দুষ্টুমিতে সে চুলের ছোঁয়া
প্রায়শই এসে পড়ছে...
আমার চোখে-ঠোঁটে!

আর....তখনই সে অনুভব করছে!
অনুভব করছে...
এক পশলা বৃষ্টি!
শুধু এক পশলা বৃষ্টি...
ধীরে ধীরে তাকে ভাসিয়ে নিয়ে যাচ্ছে...
বহুদূর...কোনো এক সমুদ্র-গহীনে!
যেখানে কান পাতলে শোনা যায়....
নিরবে নিশ্চুপে কেঁদে উঠছে আমার কষ্টগুলো!
আমার নিরব, নিশ্চুপ, বেরঙা কষ্ট!!!